হাঁস পালন করে প্রতি মাসে সাদেকুলের আয় ৪০ থেকে ৫০ হাজার টাকা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার জামবাড়ীয়া ইউনিয়নের ফতোপুর খাসপাড়া গ্রামের সাদিকুল ইসলাম ক্যাম্পবেল হাঁস পালন করে স্বাবলম্বী হয়েছেন। সারা বছরই হাঁস পালন করা যায় তবে শীতের সময় হাঁস এবং হাসের ডিমের চাহিদা বেশি থাকে।

 

 

জানা যায়, ৩ বছর আগে ১১ হাজার ২শ টাকায় ৭৫০ টি বাচ্চা হাঁস কিনে লালন পালন শুরু করেন। আনুমানিক চার মাস বয়সে হাঁসগুলো ডিম দেয়া শুরু করে। বর্তমানে সব খরচ বাদ মাসে ৪০-৫০ হাজার আয় হয়।

 

সাদিকুল ইসলাম জানান, ক্যাম্পবেল জাতের হাঁস পালনে কোনো ঝামেলা না থাকলেও রয়েছে বাড়তি সুবিধা। এ প্রজাতির হাঁস খাবার সংগ্রহ করে মাঠ-ঘাটে, খাল-বিল, ডোবা বা ফসলের ক্ষেতে।

 

 

দল বল নিয়ে ছুটে চলে শতশত হাঁস, আবার দিন শেষে খামারে ফিরে আসে দল বেঁধে। তবে বিলের মধ্যে হাঁস পালন করতে পারলে তেমন কোনো খরচ হয় না।

 

 

তিনি বলেন, নিজের তেমন কোনো জায়গা না থাকায় নদীতে হাঁস পালন করতে হয়। নদীতে পালন করার জন্য প্রতিদিন গড়ে আড়াই হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। তাছাড়া প্রতিদিন গড়ে ৪৪০ টি ডিম পাই।

 

 

তাছাড়া একটি হাঁস বছরে আনুমানিক ২৮০ টি ডিম দিয়ে থাকে। তবে দেশি হাঁসের তুলনায় খাকি ক্যাম্পবেল হাঁস টানা তিন বছর পর্যন্ত ডিম দেয়।

 

 

তিনি আরও বলেন, সব খরচ বাদ দিয়ে মাসে ৪০-৫০ হাজার টাকা আয় করছেন তিনি এবং সুন্দরভাবে সুখ সাচ্ছন্দ্যে বাবা-মা, স্বামী- স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক ছেলের বউ নিয়ে একত্রে সাংসারিক জীবন জাপন করছেন।

 

 

এমতাবস্থায় আর্থিক সহযোগিতা পেলে তার খামারটি আরও বড়ো করে এলাকার অসহায় লোকজনের কাজের ব্যবস্থা করতে পারবেন বলে মনে করেন তিনি।

 

তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার