বাচ্চাদের বকাঝকা না করে হোম ওয়ার্ক করতে উৎসাহিত করার উপায় জানুন

বাচ্চাদের কিছু সময়ের স্কুল জীবন অনেক অভিভাবক দের জীবন অতিষ্ঠ ও ক্লান্ত করে তুলেছে। কারণ তারা তাদের অফিসের কাজ বা গৃহস্থালির কাজ ছাড়াও বাচ্চাদের স্কুলের হোমওয়ার্ক করে দেওয়ার দায়িত্ব অনেক অভিভাবকরাই নিয়ে থাকেন।

চলুন জেনে নেওয়া যাক

১. আপনার বাচ্চার বাড়ির কাজ করে দেবেন না: পিতা-মাতার তাদের বাচ্চাদের স্কুলের পড়াশোনা করার দায়িত্ব গ্রহণ করা উচিত নয়। ১২ বছরের পরিবর্তে ৭ বছর বয়সের মধ্যে শেখার অভ্যাস বিকাশ করাটা অনেক সহজ। পিতা-মাতার ভূমিকা হল পথ প্রদর্শন করা এবং সাপোর্ট করা। কাজটি যদি তাদের কাছে অনেক কঠিন মনে হয় তাহলে অভিভাবকদের সেটা দেখিয়ে দিতে হয় তাই বলে এই নয় যে তাদের সেটা করে দিতে হবে।

২. বাচ্চাদের শিখতে শিক্ষা দিন: অভিভাবকদের উচিত বাচ্চাদের কে সঠিকভাবে তাদের বাড়ির কাজ করতে শেখানো। তাদেরকে বুঝিয়ে বলতে হবে কেন নির্দিষ্ট কিছু করার জন্য কাজ করা জরুরি, তাদের পরিণতি এবং নির্দেশনা অনুসরণ করার জন্য পুরস্কার দেওয়া উচিত।

৩. তাদের কাজের জায়গাটা সঠিকভাবে সাজান: যেখানে তারা মনোযোগসহকারে পড়ালেখা করতে পারবে এমন জায়গায় তাদের পড়াশোনা কক্ষটি সাজান। যেখানে পর্যাপ্ত আলো-বাতাস রয়েছে এবং সহজে দরকারি জিনিস গুলো নাগালে পেতে পারে এমন জায়গায় স্থাপন করুন।

৪. বাচ্চাদেরকে সময় সচেতন হতে শিক্ষা দিন: অধিকাংশ সময়ই বাচ্চারা সময় সম্পর্কে সচেতন না, তারা জানে না কত সময় গেছে এবং কতটা বাকি আছে। একটি সাধারন এলাম ঘড়ি এটা সহজ সমাধান হতে পারে। প্রথমে আপনার বাচ্চা খেতে, কার্টুন দেখতে, বাড়ির কাজ করতে কতটুকু সময় নেয় তা পরিমাপ করার চেষ্টা করুন। তাহলে আপনি সহজেই বাচ্চাদের বলতে পারবেন যে কত সময়ের মধ্যে বাড়ির কাজ শেষ করা লাগবে।

৫. আপনার বাচ্চাকে অনুপ্রাণিত করুন: বাচ্চার প্রচেষ্টার জন্য এবং ভালো রেজাল্টের প্রশংসা করা উচিত। প্রাথমিক স্কুল বাচ্চাদের জন্য আপনি একটি মোটিভেশনাল বোর্ড কাজে লাগাতে পারেন। সেখানে কাগজের টুকরো কাগজ গুলো ( বিছানা ঠিক করা, বাড়ির কাজ করা বা ময়লা ফেলা ) লিখে টানিয়ে রাখতে পারেন এবং সপ্তাহের শেষে একটি ভালো পুরস্কার প্রদান করতে পারেন। এতে তারা কাজ করতে অনুপ্রাণিত হবে

৬.মনে রাখবেন যে, গ্রেট পয়েন্ট একটা শিশুর সফলতা নির্ধারণ করে না: অধিকাংশ অভিভাবকের আয়ের তাদের বাচ্চাদের খারাপ গ্রেড পয়েন্ট নিয়ে দুশ্চিন্তা করেন। খারাপ রেজাল্ট করা মানে এই নয় যে বাচ্চাটি মূর্খ, অলস, দায়িত্বহীন এবং কাজ করতে অনিচ্ছুক। তারা শুধুমাত্র এই বিষয়টি নিয়ে কথা বলে যে কিছু কারণে আপনার সন্তান পড়াশোনা করতে চায় না বা তারা খুব জটিল স্কুল প্রোগ্রামের কারণে এটি করতে পারে না।