বাজারের সেরা ১০টি সাবানের ব্র্যান্ড যা আপনার ত্বককে রাখবে নরম ও কোমল

সাবান ব্যবহার করা যে কেবল সহজ, তা নয়, সুবিধাজনকও। অনেক সাবান এমন রয়েছে, যা ত্বককে শুষ্ক করে তোলে। তেমনই এমন কিছু সাবানও রয়েছে যা আপনার ত্বককে করে তুলতে পারে বেবি সফ্ট।

বাজারে প্রচুর ব্র্যান্ডের সাবান রয়েছে, এর মধ্যে থেকে নিজের জন্য ভালো সাবান বেছে নেওয়া কিছুটা কঠিন হতে পারে। এজন্য আপনাদের জন্য রইল সেরা দশটি সাবানর ব্র্যান্ড, যা কেবল আপনার ত্বকেই নতুন করে অনুভূতি দেয় না, পাশাপাশি মৃত কোষগুলিকে সরাতে এবং ত্বককে উন্নত করতে সহায়তা করবে।

১) ওলে-আল্ট্রা ময়েশ্চার বার

এই সাবানটি বিশেষত যাদের ত্বক শুষ্ক, তাদের জন্য তৈরি করা হয়। এই সাবানে রয়েছে শিয়া বাটার, যা ব্যবহারের পরে আপনার ত্বককে খুব নরম করে তুলবে। তবে হ্যাঁ, আপনার যদি নর্মাল স্কিন হয়, তবে এই সাবানটি আপনাকে কিছুটা তৈলাক্ত বোধ করতে পারে কারণ এতে ময়েশ্চারাইজারের পরিমাণ খুব বেশি।

সুবিধাঃ

ব্যবহারের পরে ত্বক ময়শ্চারাইজড হয়ে যায়।
এটি চলে দীর্ঘ।এতে আপনার পয়সা উসুল হয়ে যাবে।
এটি ত্বকে কোনও জ্বালা অনুভূত করে না।

ক্ষতিঃ

কিছু লোক অভিযোগ করে যে এটি দ্রুত ভেঙে যায়।
এটি কেবল দুটি বা চারটি কেকের প্যাকে পাওয়া যায়।
এর দুটি কেকের প্যাকটির দাম প্রায় ৬০০ টাকা। তাই এটি ব্যয়বহুল মনে হতে পারে।

২) ডাভ-ক্রিম বিউটি বার

ডাভ হ’ল প্রথম ব্র্যান্ড যা বাজারের এক চতুর্থাংশ ময়েশ্চারাইজিং মিল্ক সমৃদ্ধ সাবান নিয়ে এসেছে। এমনকি স্নানের পরে দীর্ঘ সময় পরেও আপনার ত্বক দীর্ঘ সময় নরম অনুভব হবে। এটি কেবল ত্বককে ময়শ্চারাইজ করে না, সেইসঙ্গে এর নিজস্ব সুগন্ধও ছেড়ে যায়।

সুবিধাঃ

এই সাবানটি ময়েশ্চারাইজার হিসাবেও কাজ করে।
এর ব্যবহারের পরে ত্বক নরম হয়ে যায়।
স্নানের পর ত্বক নরম ও স্মুদ হয়।

ক্ষতিঃ

কিছু মানুষ অভিযোগ করেছেন যে এটির ব্যবহারের ফলে তাদের পোরস বন্ধ হয়ে যায় এবংফুসকুড়ি বেরিয়ে আসে।
এর একটি কেকের দাম ৪৯ টাকা।

৩) ডেটল সাবান

ডেটল সাবান দাবি করে এটির ব্যবহারে ১০০ শতাংশ সংক্রমণ থেকে সুরক্ষা পাওয়া যায়। এর অনেকগুলি ভার্সান রয়েছে। যার মধ্যে আসল ডেটল ওষুধের গন্ধযুক্ত বা নতুন গন্ধযুক্ত সাবান-সহ একাধিক সংস্করণ রয়েছে। আপনি যদি জীবাণু থেকে সুরক্ষা চান তবে আপনি এই সাবানটি ব্যবহার করতে পারেন।

সুবিধাঃ

এটিকে বাজারে পাওয়া সেরা অ্যান্টিসেপটিক স্কিন ক্লিনজার বলা যেতে পারে।
অন্যান্য সাবানের চেয়ে বেশি সুরক্ষা সরবরাহ করে।

ক্ষতিঃ

কিছুলোক এটি ব্যবহারে পিম্পল বেরিয়ে গিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন।
একটি বারের দাম ৩০ টাকা।

৪) বায়োটিক অরেঞ্জ পীল বডি ক্লিনজার

বায়োটিক অ্যাডভান্সড আয়ুর্বেদের এই প্রাকৃতিক সাবানটিতে খাঁটি অরেঞ্জ অয়েল এবং অরেঞ্জ জেস্টের সঙ্গে অন্যান্য ফলমূলর উপাদানও বর্তমান। অরেঞ্জ জেস্টে উপস্থিত এনজাইমগুলি মৃত কোষগুলি সরিয়ে দেয় এবং ত্বককে চাঙ্গা করে। যার ফলে ত্বক তরুণ দেখায়।

সুবিধাঃ

ত্বক থেকে মৃত কোষগুলি সরিয়ে কোষগুলির নতুন ভাবে আসতে সাহায্য করে।
ভেজিটেবিল এক্সট্রাক্ট ত্বকের ছিদ্রগুলি খুলতে সহায়তা করে।

ক্ষতিঃ

ভারতীয় গ্রাহকরা এটিকে কিছুটা ব্যয়বহুল মনে করতে পারেন।
এটি একটি কেকের দাম পড়ে ৯০ টাকা (১৫০ গ্রাম)।

৫) পিয়ারস পিওয়র অ্যান্ড জেন্টেল সোপ

পিয়ার্সের বিভিন্ন ভ্যারিয়েন্ট বিভিন্ন বছরে বিপণন করা হয়েছে, তবে এর হালকা বাদামী ট্রান্সলুসেন্ট বার এখনও সবচেয়ে জনপ্রিয়। এর হালকা সুগন্ধ এবং শরীরকে ময়েশ্চারাইজ করার ক্ষমতা এটিকে সমস্ত বয়সের মানুষের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেছে।

সুবিধাঃ

এতে উপস্থিত গ্লিসারিন ত্বককে টানতে বাধা দেয়।
এতে কোনও রাসায়নিক থাকে না, তাই সেনসিটিভ ত্বকের লোকেরা এটি আরামে ব্যবহার করতে পারেন।
এটি ত্বককে দীর্ঘ সময়ের জন্য হাইড্রেটেড রাখে।

ক্ষতিঃ

কিছু মানুষের এটিকে অনেকবেশি মসৃণ বলে মনে হয়।
এর একটি ট্যাবলেট প্রায় ৪০ টাকায় পাওয়া যায়। যাইহোক, এর দাম ওজন অনুসারে পরিবর্তিত হতে পারে।

৬) লিরিল ২০০০ উইথ টি-ট্রি অয়েল

বছরের পর বছর ধরে লিরিল অনেকেরই পছন্দের। সাবানটি লিরিল ২০০০ উইথ টি-ট্রি অয়েল নামে পুনরায় চালু হয়েছে, যা ত্বকের সংক্রমণ নিরাময়ের করতে পারে বলে দাবি করা হয়। এই সাবানটিতে উপস্থিত লেবুর নির্যাস ত্বককে তরুণ রাখে এবং জীবাণু থেকে মুক্ত রাখে।

সুবিধাঃ

এটি পিম্পল এবং চুলকানিকে দূরে রাখে।
এর সুগন্ধ দীর্ঘক্ষণ ধরে থাকে।

ক্ষতিঃ

কিছু মানুষ এর গন্ধকে অত্যন্ত তীব্র বলে মনে করে।
এটির একটি প্যাকের দাম ৩০ টাকা।

৭) খাদি ন্যাচরাল স্যান্ডেলউড সোপ

এই সাবানটিতে চন্দন কাঠের তেল ছাড়াও রয়েছে ঘৃতকুমারী, মুলেঠি, রীঠা, কর্পুর, রতন জোট, লাল চন্দন, গ্লিসারিন যা ত্বককে পরিষ্কার করে এবং ডিটক্সাইফাই করে এবং উজ্জ্বলতা বাড়ায়। এতে রয়েছে চন্দ্র, যার ফলে এই সাবানটি ব্যবহার করলে অ্যাকনে দূর হয়।

সুবিধাঃ

এটি একটি হাতে তৈরি সাবান যাতে ত্বকের জন্য প্রয়োজনীয় এসেন্সিয়াল অয়েল এবং এক্সট্রাক্ট রয়েছে।
চন্দন এবং কর্পূর ত্বককে রোদে পোড়া এবং চুলকানি থেকে রক্ষা করে।

ক্ষতিঃ

এই সাবানের রঙ এবং সুগন্ধ হয়তো অন্যান্য সাবানের তুলনায় আপনার কম পছন্দ হতে পারে।

এর দুটি বারের প্যাকটির দাম ১৪০ টাকা।

এগুলি ছাড়াও কিছু সাবান রয়েছে যেগুলি আপনার পকেট যদি অনুমতি দেয় তবে অবশ্যই একবার ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

৮) টম ফোর্ড-জেসমিন রুজ

এটি একটি অত্যন্ত ব্যয়বহুল সাবান, যা প্রত্যেক মহিলার পছন্দ হয়, আর এটি গুণমানও দুর্দান্ত। চামেলী এবং সেজ (এক ধরণের সুগন্ধযুক্ত উদ্ভিদ)-তে ভরপুর এই সাবানটি আপনার ত্বককে সতেজতা পূর্ণ করে। এটি ব্যবহারের পরে, আপনি আপনার ত্বককে পুরোপুরি তাজা এবং সজীব বলে অনুভব করবেন।

সুবিধাঃ

এর ব্যবহারের পরে, ত্বক মখমলের মতো নরম হয়ে যায় এবং কোনও প্রকার জ্বালা অনুভব হয় না।
এটি সমস্ত ত্বকের জন্য উপযুক্ত এবং এটি খুব ভালোভাবে ত্বককে হাইড্রেট করে।
এটির প্যাকেজিংভীষণভালোএবংএর সুগন্ধও মন মাতানো।

ক্ষতিঃ

এটি একটি খুব ব্যয় বহুল সাবান।

৯) ডিওর-জাডোর সিল্কি সোপ

এই সাবানটি খুব নরমভাবে ত্বককে পরিষ্কার করার জন্য তৈরি করা হয়েছে, এতে ইলং-ইলং-এর মতো প্রাকৃতিক উপাদান রয়েছে। এই সাবান ত্বকে পুষ্টির পাশাপাশি সুরক্ষাও দেয়।

সুবিধাঃ

এটি ত্বককে হাইড্রেট করে, ত্বককে নরম করার পাশাপাশি ত্বককে করে তোলে দীপ্তিময়।
এটিতে জাডোর পারফিউমের আসল সুগন্ধ রয়েছে।
এর আকারটি ব্যবহার-বান্ধব এবং এটি দীর্ঘ সময়ের জন্য স্থায়ী।

ক্ষতিঃ

এই সাবানটি এনেকটাই দাবি। এর একটি কেকের দাম প্রায় ১৫০০ টাকা।

১০) কোকো শ্যানেল – কোকো বাথ সোপ বার

গোলাপ এবং কমলার সুগন্ধযুক্ত এই সাবানটি আপনার শরীর এবং মনকে চাঙ্গা করে দেবে। এটি ত্বকে মসৃণ এবং নিখুঁত অনুভূতি দেয়।

সুবিধাঃ

এই সাবানটিতে উপস্থিত প্রাকৃতিক উপাদানগুলি ত্বকের কোনও ক্ষতি করে না।
এটি ত্বককে হাইড্রেট করে এবং এর ব্যবহারের পরে এটি একেবারে নরম হয়ে যায়।

ক্ষতিঃ

এই মানের সাবানের জন্য, আপনাকে এর মূল্য দিতেই হবে, কারণ এর একটি কেকের দাম প্রায় ১৫০০ টাকা।