করোনা মুক্ত হলেও শরীরে যে সাধারণ সমস্যা গুলি থাকতে পারে

কোভিড মুক্ত হওয়ার পর অর্থাৎ টেস্ট রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর শুধুমাত্র লড়াইয়ের এক অংশই জেতা হয়। তখনও আরও অনেকটাই লড়াই বাকি। ভারতে করোনা আক্রান্তের সুস্থের সংখ্যা বাড়ছে, অনেক মানুষই সুস্থ হচ্ছে। কিন্তু করোনা মুক্ত হওয়ার পরেই সব আশঙ্কা শেষ হয়ে যায় না। বরং তখনও শরীরে এমন অনেক জটিলতা থেকে যাচ্ছে যা থেকে পরেও সমস্যা তৈরি হতে পারে।

করোনা মুক্ত হওয়ার পরে কিছু হালকা উপসর্গ থেকে যাচ্ছে যা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজে থেকেই ঠিক হয়ে যায়। কিছু উপসর্গ কিন্তু যথেষ্ট চিন্তার, এর থেকে সেরে ওঠার জন্য প্রয়োজন যত্ন। ভারতীয় গবেষকদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বেশিরভাগ করোনা মুক্ত মানুষের ক্ষেত্রে কয়েকটি একই ধরনের উপসর্গ দেখা যাচ্ছে। এই উপসর্গ যাঁদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে তাঁরাও নিজের যত্ন নিন (post covid complications) ।

করোনা পরবর্তী কাশি

কয়েকজন রোগীর ক্ষেত্রে করোনা মুক্ত হওয়ার পরেও ইনফেকশনের কারণে কাশির সমস্যা থেকেই যাচ্ছে। শরীর করোনাভাইরাস মুক্ত হওয়ার কয়েক সপ্তাহ পর পর্যন্ত কাশি থাকছে। এর জন্য আপনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন। পরামর্শ মতো কফ সিরাপ খান। গার্গেল করুন। চা খান। ধীরে ধীরে ঠিক হয়ে যাবে (post covid complications) ।

পেশীতে এবং জয়েন্টে ব্যথা

শরীরে একটি অস্বস্তি থেকে যেতে পারে। খুব ক্লান্ত লাগতে পারে। শরীর ভাইরাসের সঙ্গে মোকাবিলা করে বলেই এই ক্লান্তি আসে। এর জন্য পরবর্তী কালে হাড়ের জয়েন্টে ব্যথা হতে পারে। পেশীতে ব্যথা (post covid complications) হতে পারে। মাথা যন্ত্রণার মতো উপসর্গও নেগেটিভ রিপোর্ট আসার দুই মাস পর পর্যন্ত থাকতে পারে।

এছাড়াও যে রোগীদের গুরুতর সংক্রমণ ছিল, তাঁদের হালকা জ্বর, ইনফ্ল্যামেশন (post covid complications) থাকতে পারে পরবর্তী দুই সপ্তাহে। যাই হোক, তার সঙ্গে শরীরে ব্যথা হতে পারে। কিন্তু শরীরে ইনফেকশন বাড়ছে কি না সেদিকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ঘুমের সমস্যা

করোনা মুক্ত রোগীদের অনেকের ক্ষেত্রেই এই সমস্যা দেখা যাচ্ছে। তাঁদের ঠিকঠাক ঘুম হচ্ছে না। কোভিড-১৯ আপনার ইনসোমনিয়ার আশঙ্কা বাড়িয়ে দিতে পারে। দুশ্চিন্তা, অ্যাংজাইটির মতো সমস্য়াও বাড়তে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, দুশ্চিন্তা ইনসোমনিয়ার অন্যতম কারণ।

মনে রাখবেন, আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ঠিক রাখার জন্য় কিন্তু ঘুম খুবই প্রয়োজনীয়। তাই ঘুমে কোনওরকম সমস্য়া হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন। আপনি মেডিটেশন করবেন। যোগাসন করতে পারেন। কাউন্সেলিংয়ের সাহায্যেও ধীরে ধীরে সাধারণ জীবনে ফিরতে পারেন (post covid complications) ।

হঠাৎ হাঁপিয়ে যেতে পারেন

কাজ করতে করতে হঠাৎ হাঁপিয়ে যেতে পারেন। কিংবা আপনি যদি বিশ্রামেও থাকেন তাহলেও হঠাৎই শ্বাসের সমস্যা হতে পারে। করোনায় আক্রান্ত হলে ফুসফুসে তার একটা বড় প্রভাব পড়ে। যে রোগীরা বাড়িতেই ছিলেন, তাঁদেরও শ্বাসের সমস্যা হয়েছে মাঝেমধ্যে। গুরুতর সংক্রমণ যাঁদের ছিল তাঁদের অনেকেরই শ্বাসের সমস্যা হয়ছে। অক্সিজেনের মাত্রায় তারতম্য হয়েছে।

অনেকদিন অক্সিজেন সাপোর্টে রাখতে হয়েছে। তাই স্বাভাবিক জীবনে ফেরার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁদের প্রত্যেককেই ব্রিদিং এক্সারসাইজ করতে হবে। যোগাসন করতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী এই আসনগুলি করতে হবে (common post covid signs)।

অনেকেই করোনা মুক্ত হওয়ার পরে বুকে ব্যথা অনুভব করছেন। পাঁজরেও ব্যথা হচ্ছে অনেকের। এরকম হলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।