পান পাতায় ঢাকা মুখ, পরনে সব্যসাচীর লেহেঙ্গা, বাঙালি রীতিতে গাঁটছড়া বাঁধলেন মৌনি, দেখুন গ্যালারি

গোধূলী লগ্নে বাঙালি প্রথা মেনে অগ্নিসাক্ষী রেখে, পিড়িতে বসে পান ঢেকে বিয়ে করলেন এই বং-সুন্দরী। ইতিমধ্যে বাঙালি মতের বিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের গতিতে ছড়িয়ে পড়েছে। পাত্র মালায়ালি, কনে বাঙালি।

তাই বৃহস্পতিবার সকালে দক্ষিণী রীতি মেনে গাঁটছড়া বাঁধার পর সন্ধ্যায় বাঙালি মতে বিয়ে সারলেন মৌনি রায় ও সূরজ নামবিয়ার।

মালায়ালি রীতিতে বিয়ে হয়েই গিয়েছিল সকালে, বরের বাড়ির নিয়ম মেনে। আর রাতের গোধূলি লগ্নে হল বিয়ে বাঙালি রীতি মেনে।বাঙালি রীতি মেনে মৌনির বিয়ের প্রথম ছবি প্রকাশ্যে এনেছেন অর্জুন বিজলানির স্ত্রী নেহা।

সব্যসাচীর লাল লেহেঙ্গায় দেখা মিলল মৌনি রায়ের। মাথায় বড় মাঙ্গটিকা, গা ভর্তি কুন্দনের জুয়েলারি, মাথায় লাল-সোনালি ওড়না। সেই ওড়নাতেও বাংলা নয়, সংস্কৃতে লেখা রয়েছে ‘আয়ুষ্মতী ভব:’।

পান পাতায় মুখ ঢেকে পিড়িতে বসে সাত পাকে ঘুরলেন তিনি। ভয়ে সাতপাক নয় একপাক ঘোরানোর পরামর্শ দিচ্ছেন কোচবিহারের মেয়ে। ভিডিও ভাইরাল হতেই অনুরাগীদের ভালবাসা কুড়িয়েছেন তিনি।

মালাবদল করার আগে বরের চারপাশে সাত পাকে বাধা পরার সময় নেপথ্যে গান বেজেছে ‘আমারও পরাণ যাহা চায়…’। বৃহস্পতিবার মালায়ালী বিয়ে শেষে ইনস্টাগ্রামে মৌনি লেখেন, ‘অবশেষে তাঁকে খুঁজে পেলাম। হাতে হাত, পরিবারের আর্শীবাদ, বন্ধুদের ভালোবাসা… আমরা বিবাহিত। তোমাদের সবার ভালোবাসা আর আর্শীবাদ চাই। ইতি- সূরজ আর মৌনি’।

বেইজ-গোল্ডেন সাবেকি আউটফিটে, সঙ্গে পাগড়ি আর ম্যাচিং স্টোলে সেজেছিলেন সূরজ। এদিকে সব্যসাচীর সাজে মৌনির নাকের নথ নজর কেড়েছে।

সূরজের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে কখনও মুখ খোলেননি মৌনি। বিয়ের দিন সকালেই প্রথম বরের ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে নিজেদের সম্পর্কে আনুষ্ঠানিক শিলমোহর দেন নায়িকা।

দুবাইয়ের ইনভেসমেন্ট ব্যাঙ্কার সূরজ নামবিয়ার। সঙ্গে রিয়েল এস্টেটের ব্যবসাও রয়েছে। বেঙ্গালুরুতে আদি বাড়ি সূরজের। দুই বাড়ির রীতি মেনে মৌনি ও সূরজের বিয়েতে খুশি নায়িকার অনুরাগীরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ছবি-ভিডিওতেই তার প্রমাণ মিলেছে।