স্যালাড মানে কি শুধুই শসা-পেঁয়াজ? বানিয়ে ফেলুন নতুন রেসিপি

পুজোর আগে কয়েক দিন একটু স্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে ওজন ঝরাতে চান। কিন্তু স্যালাডা খাওয়ার নাম শুনলেই গায়ে জ্বর আসছে? শসা-পেঁয়াজ দিয়ে রোজ একই রকম স্যালাড খেলে তো অরুচি হবেই। অনেকেই বুঝতে পারেন না, যে অনেক রকম উপকরণ দিয়ে দিব্যি অন্য স্বাদের স্যালাড তৈরি করে ফেলা সহজ। তাই রোজকার খাবারে কিছু বদল আনুন। নানা রকম স্যালাড তৈরি করে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খান। তাতে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়াও হবে, আবার একঘেয়েমিও কাটবে।

রইল তেমনই কিছু স্যালাডের রেসিপি।

আমের স্যালাড

পেঁয়াজ, লাল ক্যাপসিকাম এবং পুদিনা পাতা নিন একটা বাটিতে। স্বাদ অনুযায়ী নুন আর গোলমোরিচ দিন। সঙ্গে আম টুকরো টুকরো করে কেটে মিশিয়ে নিন। শুনতে যতই অদ্ভুত লাগুক, একবার খেলে এই স্যালাডের স্বাদ জিভে লেগে থাকবে।
কাঁচা পেঁপের স্যালাড

কাঁচা পেঁপের স্যালাড

কাঁচা পেঁপের স্যালাড যে আসলে কতটা সুস্বাদু না খেলে বুঝবেন না। কাঁচা পেঁপে, গাজর, শসা একটা গ্রেটারে সরু সরু করে কেটে নিন। ড্রেসিং তৈরি করুন ভেজিটেবিল অয়েল, গোলমোরিচ, লঙ্কা, রসুনবাটা, লেবুর রস এবং সামান্য ব্রাউন সুগার দিয়ে। সব একসঙ্গে মিশিয়ে স্যালাডের উপর ছড়িয়ে দিন। তিল বা কুমড়োর বীজ উপর থেকে ছড়িয়ে দিতে পারেন।

বিট, শসার এবং বাদামের স্যালাড

যাঁরা ওজন কমাতে চান, তাদের জন্য শসা খুবই উপকারি। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে বিটরুট। এই স্যালাড বানানোও অত্যন্ত সহজ। খুব সরু করে শসা আর বিটরুট কেটে নিন। বাটিতে নুন, গোলমোরিচ এবং লেবুর রস দিন স্বাদ অনুযায়ী। উপর থেকে চিনেবাদাম ছড়িয়ে দিন। পেট অনেকক্ষণ ভর্তি থাকে এটা খেলে।