পদের ভিন্নতায় ‘কাঁচা কলার কোফতা’

পাকা কলার মতো কাঁচা কলার গুণাগুণও অপরিসীম। কাঁচা কলার ভর্তা কিংবা সুস্বাদু তরকারি রান্না করে খেয়ে থাকেন অনেকেই। এমনকি পেটের সমস্যা হলে চিকিৎসকরা কাঁচা কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন। যদিও এই সবজিটি অনেকেরই বেশ অপছন্দের। কিন্তু রান্নার ভিন্নতা খুব সহজেই এই সবজিটিকে আপনার পছন্দের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারে।

সবসময় একঘেয়েমি খাবার খেতে কারোই ভালো লাগে না। তাই স্বাদ পাল্টাতে আজ আপনাদের জন্য থাকছে কাঁচা কলা দিয়ে তৈরি এক অসামান্য রেসিপি। যার নাম কাঁচা কলার কোফতা। খেতেও দারুণ সুস্বাদু। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক রেসিপিটি-

উপকরণ: কাঁচা কলা ৬টি, নারকেল কোরানো আলু, পেঁয়াজ বাটা, রসুন বাটা, আদা বাটা, কাঁচা মরিচ, শুকনো মরিচ বাটা, জিরা, গরম মশলা (দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ), সর্ষে তেল, লবণ, তেজপাতা, ময়দা, হলুদ গুঁড়া, ঘি।

প্রণালী: প্রথমে কাঁচা কলার মাথা ও লেজের দিকটা কেটে নিন। এবার কড়াইয়ে অনেকটা পরিমাণে পানি দিয়ে ফুটতে দিন। পানির মধ্যে কাঁচা কলাগুলো দিয়ে দিন, একইসঙ্গে দিয়ে দিন টুকরো করা আলু। এবার দিয়ে দিন পরিমাণমতো লবণএবং হলুদ গুঁড়া। এই পদ্ধতিতে কাঁচা কলা এবং আলু সিদ্ধ করে নিন।

আলু ও কাঁচা কলা সিদ্ধ হয়ে গেলে তা ঠাণ্ডা করে নিন। এবার খোসাগুলো ছাড়িয়ে নিন। আলু এবং কাঁচা কলা একসঙ্গে হাতের সাহায্যে ভালো করে মেখে নিন। দেখবেন কাঁচা কলার মধ্যে যেন দলাভাব না থাকে। এর মধ্যে একে একে পেঁয়াজ বাঁটা, রসুন বাটা, আদা বাটা, শুকনো মরিচ বাটা, কাঁচা মরিচ কুচি, হলুদ গুঁড়া, নারকেল কোরানো, স্বাদমতো লবণ, সামান্য চিনি এবং অল্প ময়দা দিয়ে মিশ্রণটি ভালো করে মেখে নিন।

মিশ্রণ থেকে হাতের সাহায্যে গোল গোল করে বা চ্যাপ্টা শেপ দিয়ে কোপ্তার আকারে গড়ে নিন। এক্ষেত্রে মাপটা নিজেদের সুবিধামতো করে নিতে পারেন। অন্যদিকে তরকারির জন্য কিছু আলু কেটে রাখুন। এবার কড়াইতে সাদা তেল গরম করে নিন। তার মধ্যে কোপ্তাগুলোতে একে একে ছেড়ে দিন। গোল্ডেন ব্রাউন করে ভেজে তুলে নিন।

কড়াইয়ে সর্ষে তেল গরম করে তাতে ২টি শুকনো মরিচ ফোড়ন দিন। মরিচ একটু নাড়াচাড়া করে নিয়ে তার মধ্যে দিয়ে দিন তেজপাতা, আস্ত জিরা, আস্ত গরম মশলা। এবার এর মধ্যে দিয়ে দিন টুকরো করা আলুগুলো। আলুটা সামান্য ভেজে নিন। এবার এর মধ্যে একটা মশলার মিশ্রণ দিতে হবে। তার জন্য একটি বাটিতে পেঁয়াজবাটা, আদা-রসুন বাটা, হলুদ গুঁড়া, শুকনো মরিচ বাটা এবং সামান্য পানি দিয়ে একটা মিশ্রণ বানিয়ে নিয়ে রান্নায় দিয়ে দিন।

ভালো করে নাড়তে থাকুন। মশলাটা এইভাবে কষতে কষতে এতে দিয়ে দিন ২টি আস্ত কাঁটা মরিচ, সামান্য চিনি, সামান্য নারকেল কোরানো, স্বাদমতো লবণ। খানিকক্ষণ নাড়াচাড়ার পর এর মধ্যে দিয়ে দিন গরম পানি। ঝোল ফুটে উঠলে তার মধ্যে কাঁচা কলার কোফতা দিয়ে দিন। এবার হালকা হাতে নাড়তে থাকুন, দেখবেন কোফতা যেন ভেঙে না যায়। ওপর থেকে সামান্য ঘি ছড়িয়ে দিয়ে নামিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন কাঁচা কলার কোফতা।