শীতে বাদাম খেলে যে সকল উপকার পাওয়া যাবে

বাদাম শরীরের জন্য অনেক উপকারী। একই সঙ্গে অল্প ক্ষুধার বড় সমাধান হলো বাদাম। ক্ষুধা লাগলে সামান্য কয়েকটি বাদাম মুখে দিলে পেট ভরে যায়।

ওজন কমানোর থেকে শুরু করে মস্তিষ্কের উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করে বাদামের পুষ্টিগুণ। কাঠবাদাম, কাজুবাদাম, আখরোট এর মধ্যে সবচেয়ে সহজলভ্য ও দামে সস্তা হলো চিনাবাদাম। এটি সবসময়ই পাওয়া যায়।

শীতকালে রাস্তায় বের হলে চিনাবাদামের পসরা সাজিয়ে বসে থাকেন বাদাম বিক্রেতারা। জানেন কি শীতে বাদাম খাওয়া শরীরের জন্য কতটা উপকারী।

শীতকালে এমনিতেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে। অন্যদিকে চিনাবাদামে থাকে প্রোটিন ও ফ্যাট এর মতো অত্যন্ত উপকারী পুষ্টিগুণ। এই ছোট ছোট বাদাম খেলে শরীরে মিলবে না না পুষ্টিগুণ ও সুস্থ থাকবেন শীতে।

জেনে নিন শীতে বাদাম খেলে শরীরে কি ঘটে-

– ক্ষুধা লাগলে বাইরের তেল-মসলাযুক্ত খাবারের পরিবর্তে একমুঠো চিনাবাদাম খান। এতে ওজন ও সঠিক থাকবে, ক্ষুধাও মিটবে আবার শরীর সুস্থ‌ থাকবে।

– প্রতি ১০০ গ্রাম চিনাবাদামে মোটামুটি ২৫ দশমিক ৮ গ্রাম প্রোটিন থাকে। হলে শীতকালে চিনা বাদাম শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি মেটাতে সাহায্য করে।

– নিয়মিত অল্প পরিমাণে চিনা বাদাম খেলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। একই সঙ্গে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতেও সাহায্য করে চিনাবাদাম।

– ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রে চিনাবাদাম অত্যন্ত উপকারী একটি উপাদান। রক্তে শর্করার পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে বাদাম খেলে তা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। তবে অবশ্যই পরিমাণ মেপে তবে খেতে হবে।

– খনিজ ও ভিটামিন সমৃদ্ধ চিনাবাদাম শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। সব খাবারই পরিমিত খাওয়া উচিত। অতিরিক্ত যে কোন খাবার খেলে শরীরের উপকার এর পরিবর্তে ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে।