শীতে ড্রাই স্কিনে জেল্লা বাড়াবে কেয়া শেঠের স্পেশাল ৫টি ফেস প্যাক

শীতকালে স্কিনের জেল্লা বজায় রাখার জন্য শীতের শুরু থেকেই বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। কিন্তু কীভাবে নেবেন সেই যত্ন, তা অনেকেই বুঝতে পারেন না। সেই সমস্যার সমাধানেই আজকের লেখায় রইল কেয়া শেঠের পাঁচটি স্পেশাল ফেস প্যাকের সন্ধান, যা প্রবল শীতেও আপনার ত্বককে রাখবে নরম আর ড্রাই স্কিনে এনে দেবে জেল্লা।

১. কফি মাস্ক

এক চামচ কফি, এক চামচ কোকো পাওডার, মধু এবং পরিমাণ মতো দুধ নিয়ে একটা প্যাক বানিয়ে নিন। এবার এই মাস্কটিকে মুখে, গলায় অ্যাপ্লাই করুন। ২০ মিনিট মতো রাখুন, যখন দেখবেন শুকিয়ে গিয়েছে, তখন হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে নিন। এই প্যাকটি আপনি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করতে পারেন।

কফি আমাদের ত্বকে রক্ত সঞ্চালনকে বৃদ্ধি করে, ফলে ত্বক তার হারানো জেল্লা ফিরে পায়। এছাড়া ত্বকে কোনওরকম ফোলা ভাব থাকলে কফি সেটিকে দূর করে ত্বককে টানটান করে তোলে।

তাই শীতকালে ড্রাই স্কিনের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এই ফেস প্যাকটিকে অনায়াসে কাজে লাগাতে পারেন। এছাড়া কোকো পাওডারে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা শুষ্ক ত্বককে ভিতর থেকে সারিয়ে তোলে। ফলে শীতকালে আপনার রুক্ষ ত্বকের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এই প্যাকটিকে কাজে লাগান।

২. অরেঞ্জ হানি মাস্ক

কমলালেবুর খোসা, মধু শীতকালে ফেস প্যাকে কমলালেবু ব্যবহার করতে কেয়া শেঠ সবসময়েই পরামর্শ দিয়ে থাকে। কমলালেবুর খোসা, রস, সবটাকেই এই কাজে আপনি ব্যবহার করতে পারেন। এর জন্যে এক চামচ মধু, কমলালেবুর খোসা বাটা বা খোসা শুকিয়ে গুঁড়ো করা (এটি বাজারে কিনতে পাওয়া যায়।

শীতকালে আপনি যে-কমলালেবু খেয়ে থাকেন, তার খোসা ফেলে না দিয়ে রোদে শুকিয়ে গুঁড়ো করে নিতে পারেন), গোলাপজল ও কমলালেবুর রস পরিমাণ মতো নিয়ে পেস্ট তৈরি করে ফেলুন। এবার এই পেস্টটিকে গলায়, মুখে ভাল করে মাখিয়ে শুকিয়ে যেতে দিন। শুকিয়ে গেলে ঈষদুষ্ণ গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

কমলালেবুর খোসা এবং রসে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি থাকে। ভিটামিন সি ত্বককে জেল্লাদার করে তোলে। এছাড়া মধু আমাদের স্কিনের শুষ্ক ও রুক্ষভাব দূর করে স্কিনকে আর্দ্র করে তোলে। এছাড়া মধুর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল গুণ ব্রণর সমস্যা দূর করে। গোলাপজল ত্বকের স্বাভাবিক টোনার হিসেবে কাজ করে। তাই এই ফেস প্যাকটি আপনি সপ্তাহে দু’-তিনবার লাগালেই দেখবেন দুর্দান্ত উপকার পাচ্ছেন।

৩. পেঁপে ও দুধের ফেস প্যাক

যে-কোনও ত্বকের সমস্যার সমাধানেই কেয়া শেঠ প্রাকৃতিক উপাদানের উপর ভরসা রাখতে বলেন। তাই তাঁর পরামর্শ মতো এই পাকা পেঁপে আর দুধের ফেস প্যাকই শীতের দিনে আপনার নিত্য সঙ্গী হয়ে উঠতে পারে। এর জন্যে প্রয়োজন মতো পাকা পেঁপে এবং দুধ নিয়ে একসঙ্গে পেস্ট করে নিন। তারপর এই পেস্ট গলায় ও মুখে লাগিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট মতো রেখে তারপর ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি আপনি সপ্তাহে তিনবার লাগাতে পারেন।

শীতের শুরু থেকেই এই প্যাকটি লাগাতে শুরু করুন, দেখবেন, গোটা শীতেই আপনার ত্বক কেমন জেল্লাদার থাকছে। এতে থাকা পেঁপেতে উপস্থিত প্যাপেইন উৎসেচক ত্বক থেকে মৃত কোষ দূর করে ত্বককে প্রাণোজ্জ্বল করে তোলে। এবং দুধ পোরস পরিষ্কার করে। ফলে মুখ ভিতর থেকে পরিষ্কার হয়ে উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

৪. অ্যালোভেরা ও চন্দনের ফেস প্যাক

শীতে ত্বকের যত্নের জন্য যদি ওয়ান-স্টপ-সলিউশন চান, তাহলে এই ফেস প্যাকটির নাম প্রথমেই করতে হয়। তবে এক্ষেত্রে কৃত্রিম অ্যালোভেরা জেলের বদলে বাড়িতে যদি অ্যালোভেরা গাছ থাকে, তাহলে অ্যালোভেরা পাতা থেকে ফ্রেশ জেল বের করে নিয়ে এই ফেস প্যাকটি বানালে বেশি উপকার পাবেন।

এর জন্যে দু’ চামচ ফ্রেশ অ্যালোভেরা জেল, এক চামচ মধু, এক চামচ চন্দনের গুঁড়ো (এটি বাড়িতে গুলে নিতেও পারেন) নিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর গোটা মুখে ও গলায় ভাল করে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ১৫ মিনিট পর হালকা গরম জলে ধুয়ে নিন। সপ্তাহে অন্তত দু’বার ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

অ্যালোভেরায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও ইনফ্লেমেটরি গুণ ত্বককে আরাম দেয়। তাছাড়া শীতকালে অ্যালোভেরা জেল প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজারের কাজ করে এবং স্কিনকে নরম করে তোলে। চন্দন ব্রণ প্রতিরোধ করে স্কিনের ড্রাইনেস দূর করে এবং রিঙ্কল, বয়সের ছাপ মুখ থেকে দূরে সরায়।

৫. চালের গুঁড়ো ও অরেঞ্জ ফেস প্যাক

এক চামচ চালের গুঁড়ো, এক চামচ অরেঞ্জ পিল পাওডার এবং দু’ চামচ মধু নিয়ে একটি প্যাক বানিয়ে নিন। এবার মুখে ভাল করে মেখে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন মুখের মরা চামড়া উঠে গিয়ে মুখে সুন্দর উজ্জ্বল একটি ভাব এসেছে। এটি আপনি সপ্তাহে একদিন ব্যবহার করতে পারেন।

চালের গুঁড়োতে থাকা ফেরুলিক অ্যাসিড ও অ্যালানলয়েন প্রাকৃতিক সানস্ক্রিন হিসেবে কাজ করে। এছাড়া কমলালেবুর খোসায় থাকা ভিটামিন সি মুখের শুষ্ক ভাব দূর করে মুখকে ভিতর থেকে উজ্জ্বল করে তোলে। এছাড়া মুখের কোষে জমে থাকা ময়লা দূর করতেও এই ফেস প্যাকের জুড়ি নেই।

মনে রাখবেন, কেয়া শেঠ কিন্তু সবসময় স্কিন কেয়ারের জন্যে প্রাকৃতিক উপাদানেই ভরসা রাখতে বলেন। তাই আপনার যদি ড্রাই স্কিন হয়, তাহলে এবারের শীতে শুরু থেকেই ভরসা রাখুন কেয়া শেঠের এই বিশেষ ফেস প্যাকের টোটকায়। আর জেল্লাদার স্কিনে সকলকে চমকে দিন।