বাহারি রঙের পাটিসাপটা

শীতকালে ঘরে ঘরে পিঠা বানানোর ধুম পড়ে। শহর কিংবা গ্রামাঞ্চলে এখনো একসঙ্গে পিঠা বানাতে বসেন নারীরা। গল্পে গল্পে কত স্বাদের কত পদের পিঠাই না বানাতে থাকেন। চিরচেনা পিঠাকেই আবার ভিন্ন স্বাদ দিতে বাড়তি তরকা যোগ করেন। যেমন ভাপা পিঠায় ঝাল, মিষ্টির স্বাদ দেন, চিতই পিঠার ওপরে কখনো ডিম দিয়ে ডিম চিতই বানিয়ে নিচ্ছেন। পাটিসাপটা পিঠাও বাদ যায় না। চিনি কিংবা গুড়ের পাটিসাপটা বানাচ্ছেন।

পিঠাপ্রেমীদের প্রিয় পিঠা পাটিসাপটা এখন কমবেশি সব ঘরেই বানানো হয়। খাবারের দোকানেও পাওয়া যায় পাটিসাপটা পিঠা। তবে ঘরে বানানো পিঠার স্বাদ কি আর মেলে! তাই যারা ঘরে পারফেক্ট পাটিসাপটা পিঠা বানাতে চান, তাদের জন্য ভিন্ন স্বাদের বাহারি রঙের পাটিসাপটা পিঠার রেসিপি রইলো আজ। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক বাহারি রঙের পাটিসাপটা পিঠা তৈরির রেসিপিটি-

উপকরণ: নারকেল কোরা এক কাপ, চিনি দুই কাপ, মিল্কমেড চার টেবিল চামচ, গরুর দুধ দুই কাপ, চালের গুঁড়া এক কাপ, ময়দা আধা কাপ, সুজি ১/৩ কাপ, ঘি এক টেবিল চামচ, কোকো পাউডার এক টেবিল চামচ, লাল ফুড কালার এক চা চামচ, সবুজ ফুড কালার এক চা চামচ।

প্রণালী: একটি প্যানে নারকেল কোরা, চিনি, মিল্কমেড দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। নাড়তে থাকুন। ১০ মিনিট ফোটানোর পর মিল্কমেড দিয়ে ৫থেকে ৭ মিনিট ফুটিয়ে নিন। এই ভাবে ফোটাতে ফোটাতে যখন মন্ড মতো হয়ে আসবে তখন গ্যাস বন্ধ করে দিন।

এবার একটি বাটিতে চালের গুঁড়া, ময়দা, সুজি, চিনি, দুধ ও পরিমাণ মতো পানি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ঐ ব্যাটার থেকে অল্প তুলে নিন অন্য বাটিতে। এর মধ্যে কোকো পাউডার মিশিয়ে নিন। আর একটি বাটিতে একটু তুলে নিয়ে এর মধ্যে লাল ফুড কালার মিশিয়ে নিন।

এবার একটি প্যান গরম করে ঘি ব্রাশ করে নিন। এবার লাল রঙের ব্যাটার থেকে নিজের ইচ্ছেমতো ডিজাইন দিন। তার ওপরে সাদা ব্যাটার দিন। এর ওপরে তালের ক্ষীর দিন। এবার রোল করে ২ পিঠ ভালো করে শেকে তুলে নিন। এবার কোকো পাউডার মেশানো ব্যাটারটা দিয়ে আবারও সাদা ব্যাটার দিন। আগের টার মতো করে রোল করুন। তৈরি হয়ে গেল তাল ক্ষীরের রং বাহারি পাটিসাপটা।