এই শীতে গরম পানিতে গোসল করার সময় এই ভুলগুলি হতে পারে মারাত্মক

শীত পড়ুক না পড়ুক, একটু ছ্যাঁকছেকে ভাব পড়তে না পড়তেই চালু হয়ে যায় গরম জলে স্নান। এখন বহু বাড়িতেই গিজার থাকার ফলে গরম জল পাওয়াটাও সুলভ। আলাদা করে আর জল গরম করার ঝক্কি থাকে না। এবং গরম জলের পরিমাণও থাকে অনেক। কিন্তু এই গরম জলেই স্নান করলে ক্ষতিহতে পারে অনেক। তাই গরম জলে স্নান করার সময়ে কয়েকটা কথা মাথায় রাখা শ্রেয়।

অনেকক্ষণ ধরে গরম জলে স্নান একেবারেই নয়

বহু মানুষের প্রবণতা থাকে শীত কালে স্নান না করার। আবার কেউ কেউ আছেন, স্নান করতে ঢুকলে বেরোতেই চান না। এই দুইয়ের মাঝে সমতা বিধান করতে হবে আপনাকেই। অনেকক্ষণ ধরে গরম জলে স্নান করার একেবারেই উচিত নয় বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে বেশিক্ষণ শরীরে গরম জল ঢালতে থাকলে কেরাটিন নামে এক ধরনের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আবার অনেকেই বলেন যে, গরম জল শুধু মাত্র শরীরেই ঢালা উচিত। চুলের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে মাথায় সাধারণ তাপমাত্রার জল ব্যবহার করা উচিত। সে ক্ষেত্রে প্রথমে চুল ভাল করে ধুয়ে নিয়ে তার পর গরম জলে স্নান করতে পারেন। এ ছাড়া গরম জল হবে ঈষদুষ্ণ। যাতে হাত ছোয়ালে তা সহনীয় বলে বোধ হয়।

ঠান্ডা লাগার প্রবণতা এবং হোয়াইট ব্লাড সেলস

শীতকালে ঠান্ডা লাগা খুব স্বাভাবিক ঘটনা। যে কোনও রকম সংক্রমণে শরীর নিজে থেকে শ্বেত কণিকা বা হোয়াইট ব্লাড সেল তৈরি করে। অতিরিক্ত পোশাক চাপিয়ে রাখলে এই স্বাভাবিক ঘটনাই ব্যাহত হয়।

অতিরিক্ত খাবার খাওয়া

শীত হোক বা গরম… কোনও পরিস্থিতিতেই অতিরিক্ত পরিমাণে খাবার খাওয়া উচিত নয়। বেশি তৈলাক্ত খাবার, প্যাকেটজাত খাবার খাওয়াও অনুচিত। কারণ বদহজমের সমস্যা এই সময়ে বাড়ে। তাই যতটা সম্ভব হালকা খাবার খাওয়াই শ্রেয়।

​বেশি কফি পান করা উচিত নয়

শীতকালে প্রায়শই মনে হয়, একটু জমিয়ে কফি খেলে ভালa হত। কিন্তু অতিরিক্ত কফি শরীরের জন্য মোটেও ভাল নয়। তার ওপরে দুধ, চিনি মেশানো কফি বার বার খাওয়াও ঠিক নয়। তাই দিনে খুব বেশি হলে দুই থেকে তিন কাপ কফি খাওয়া যেতে পারে। তার বেশি একেবারেই নয়। ব্ল্যাক কফি খাওয়া তুলনামূলক ভাবে ভালো।

জল কম পান করা উচিত নয়

শীতকালে তেষ্টা পাওয়ার প্রবণতা কম। তাই যাঁরা শুধু মাত্র তেষ্টা পেলেই পান করেন, তাঁদের জন্য এই সময়টা একেবারেই ঠিক নয়। শরীরকে শীত কালে যতটা সম্ভব হাইড্রেটেড রাখা উচিত। তবেই শরীর ভাল থাকবে। তাই রোজ পর্যাপ্ত পরিমাণে জল, ফলের রস, চিকেন স্ট্যু ইত্যাদি খান।

অল্প বিস্তর শারীরিক ব্যায়াম জরুরি

শীত কালে ঘুম থেকে উঠতে ইচ্ছে না করাই স্বাভাবিক। কিন্তু এই সময়ে, উৎসবের মরসুমে অনেক বেশি বেহিসেবি খাবার খাওয়া হয়ে যায়। তাই এই সময়ে হালকা শারীরচর্চা করতে থাকুন। শীত কালে শরীর ঠিক রাখার উদ্যোগ নিতে হবে নিজেকেই। সামান্য কিছু নিয়ম মেনে চললে শীতভর সুস্থ থাকা খুব একটা কঠিন কাজ নয় মোটেও।