পুরুষেরা বয়স ৩০ পেরলে হতে পারে এই রোগগুলি বেপারে সতর্ক থাকুন

৩০ বছর বয়সটা হল মধ্যবয়সের পৌঁছানোর দুয়ার। এই বয়স থেকেই শরীরে দেখা দিতে নানান সমস্যা। এক্ষেত্রে আমাদের খারাপ জীবনযাত্রাই (Lifestyle) সমস্যার কারণ হতে পারে বলে বিভিন্ন গবেষণায় উঠে এসেছে। তাই এই বয়স পেরনোর আগে থেকেই হতে হবে সাবধান।

একটা সময় ছিল, যখন বলা হতো ৩০ বছর বয়সে কোনও রোগ হয় না। তবে এখন চিত্রটা বদলে গিয়েছে। আমরা এখন খারাপ জীবনযাত্রায় (Lifestyle) অভ্যস্ত। কোনও সময়ই আমরা ভালোমতো বাঁচতে পারছি না। সকাল থেকে দৌড়ঝাপ হচ্ছে শুরু। এরপর অফিস পৌঁছে সোজা কম্পিউটারের সামনে। তারপর সারাদিন নজর কম্পিউটারে। এভাবেই সকাল পেরিয়ে কখন যে রাত হয়, বোঝাই যায় না। এরপর বাড়ি গিয়ে সোজা ঘুম। আবার ঘুম ঠিক হলেও না হয় হতো।

কিন্তু এই জীবনে যে ঘুমের দেখা পাওয়াও সম্ভব নয়। তাই ঘুম হয় না। আর এই যে সারাদিনের রুটিন বললাম, তার মধ্যে কোথাও নেই শারীরিক পরিশ্রম। শুধু খাওয়া আর ঘুম চলছে। এবার খাওয়ার কথায় ফেরা যাক। বাড়ির খাবার আমাদের মুখে রোচে না। তাই দোকানের খাবার খেতেই পছন্দ করি। আর এখন অনলাইন ফুড ডেলিভারির জন্য এই খাবার পাওয়াও সহজ হয়েছে। বাড়িতে, অফিসে বসেই মিলছে সুস্বাদু খাবার। শরীরে ঢুকছে নানান ক্ষতিকর উপাদান। বাড়ছে ওজন। এই সমস্ত ভুলগুলির কারণেই আমাদের মধ্যে বাড়ছে রোগের আশঙ্কা।

​হাড়ের জোর কমে যাওয়া

শেষ কবে সূর্যের আলোয় বেরিয়েছিলেন জানেন! আশা করি বেশিরভাগ চাকরিজীবীর কাছেই এর উত্তর থাকবে না। কারণ তাঁরা অফিসেই সারা দিন কাটিয়ে দেন। সেখানে সূর্যরষ্মি ঢোকার কোনও উপায় নেই। আর সূর্যরষ্মি শরীরে না পৌঁছানোর ফলে ভিটামিন ডি (Vitamin D) কমতে থাকে। এবার ভিটামিন ডি-এর অভাব হলে হাড়ের উপর তার সরাসরি প্রভাব পড়ে। এছাড়া আমরা ক্যালশিয়াম (Calcium) যুক্ত খাবারও খেতে পারছি না। ফলে শুরু হয় হাড়ে ব্যথা। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে দুধ পান করুন রোজ। আর সময় পেলেই রোদে দাঁড়ান। ছবি

​চুল পড়া

বয়স হলে চুল পড়ে। তবে অনেকের বয়স ৩০-এর গোড়ায় পৌঁছানো মাত্রই শুরু হয়ে যায় সমস্যা। চুল পড়ার নানা কারণ থাকতে পারে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল জিনগত কারণ, দুশ্চিন্তা, চুলের পুষ্টি না হওয়া ইত্যাদি। এক্ষেত্রে চুলের খেয়াল রাখতে চাইলে দুশ্চিন্তা কমাতে হবে। ভালো খাবার খান। কারণ চুলের পুষ্টি ভালো রাখতে চাইলে আপনাকে সুষম খাবার যেমন- মরশুমি ফল, শাকসবজি খেতে হবে। তবেই এই সমস্যা থেকে মিলবে মুক্তি।

হাই ব্লাডপ্রেশার

উচ্চ রক্তচাপের (High Blood Pressure) সমস্যা এখন অনেক কম বয়সেই দেখা দিচ্ছে। এই রোগের পিছনে থাকতে পারে নানা সমস্যা। তবে সবথকে মুশকিল কোথায় জানেন, এই রোগের লক্ষণ সহজে প্রকাশ পায় না। আর যখন লক্ষণ দেখা যায় তখন সমস্যা অনেক দূর এগিয়ে গিয়েছে। তাই আপনাকে নিজের ব্লাডপ্রেশার মাপতেই হবে। সেই মতো নিজেকে প্রস্তুত রাখুন। আর ব্লাডপ্রেশার নিয়ন্ত্রণে রখাতে চাইল একটু শারীরিক পরিশ্রম করতে হবে। তবেই হবে সমস্যার সমাধান।

​সুগার

এখন সুগার (Diabetes) তো ঘরে ঘরে। আগে যেখানে এই রোগটি বয়সকালে হতো, এখন তো আর তার কোনও বালাই নেই। এখন বয়স ৩০-এর কোঠায় পৌঁছালেই অনেকে টাইপ ২ ডায়াবিটিসে আক্রান্ত হচ্ছেন। এই রোগের নেপথ্যে সবথেকে বড় কারণ হল খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপন। এক্ষেত্রে বারবার মূত্রত্যাগ, হঠাৎ ওজন কমে যাওয়া, দুর্বলতা ইত্যাদি এই রোগের লক্ষণ। তাই এমন উপসর্গ দেখা দিলেই নিজেকে সুগার পরীক্ষা করুন। দেখবেন সমস্যা অনেকটাই কমেছে।

​হার্টের অসুখ

সুগার, প্রেশারের মতো রোগের পাশাপাশি এখন হার্টের অসুখও এই বয়সে বেশি হতে দেখা যাচ্ছে। এখন অনেক কম বয়সেই মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। এমনকী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটছে। এই অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লার কথাই ধরুন। তবে সিদ্ধার্থ শুক্লা একা নন, এমন অনেক মানুষই এমন সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন। তাই সতর্ক থাকুন।