সহজ ঘরোয়া উপায়ে আন্ডারআর্মের কালচেভাব এবং দুর্গন্ধ দূর করুন

এই সময় জীবনযাপন ডেস্ক: এবারের পুজোতেও ছয়টি দারুণ সুন্দর শাড়ি কিনেছে রাকা। তার মধ্যে চারটে শাড়ি ডিজাইনার এবং বাকি দুটো সাবেকি। সাবেকি শাড়ির সঙ্গে সাবেকি ডিজাইনের ব্লাউজ মানিয়ে যাবে। কিন্তু ডিজাইনার শাড়ির সঙ্গে তো স্লিভলেস ডিজাইনার ব্লাউজ দরকার। বুটিকে ডিজাইনার ব্লাউজ দেখেও ছিল সে। কিন্তু সাহস করে আর কিনতে পারেনি। স্লিভলেস ব্লাউজ পরার আত্মবিশ্বাস তাঁর নেই। কারণ তাঁর আন্ডারআর্মের কালচে ভাব।

রাকার মতোই অবস্থা পুজার। স্লিভলেস ড্রেস কেনার পরও ম্যাচিং শ্রাগ কিনে নিয়েছে সে। আন্ডারআর্মের কালচে ভাবের কারণে সুন্দর স্লিভলেস ড্রেস সে পরতে পারে না।

রাকা আর পুজার মতো রোহনের অবস্থাও প্রায় এক। ও পেশাদার কোরিওগ্রাফার। সিনেমায় ভালোই নামডাক তার। দেশে বিদেশে অনেক শো করে ওদের টিম। পুজোয় অনেকগুলো নাচের অনুষ্ঠানের কনট্র্যাক্ট আছে। সেখানে নানা ধরনের পোশাক পরতে হয় তাকে। ফলে সবসময়ই ফিটফাট থাকতে হয়। আর নাচের সময় স্লিভলেস পোশাক তাকে পরতেই হয়। কিন্তু আন্ডারআর্মে কালচে ভাবের কারণে খুব অস্বস্তি হয় তার। মেক আপ করে তো সারাক্ষণ কালো দাগ লোকানো যায় না।

আন্ডারআর্মের কালোভাবের সমস্যা প্রায় সত্তর শতাংশ মানুষেরই আছে। কখনও নিজের ভুলে, কখনও অপরিচ্ছন্নতা, আবার কখনও বংশগত কারণে বাহুমূলের কালচে ভাব দেখা যায়। আর যাদের এই সমস্যা রয়েছে তারা এই সমস্যা সমাধানের অনেক ধরনের চেষ্টা করেন। কেউ মেক আপ করে কালোভাব দূর করার চেষ্টা করেন কেউ আবার কালচে স্থানে বার বার সাবান ঘঁষেন। যদিও কী কারণে আন্ডারআর্মে এধরনের কালচে ভাব হয় তার কারণ না জেনেই দাগ দূর করার চেষ্টা করেন বলে সমস্যার সমাধান হয় না।

আন্ডারআর্ম কালো হওয়ার কারণ

কালচে আন্ডারআর্ম হওয়ার বেশ কয়েকটি কারণ থাকতে পারে। ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া, বংশগতি, অতিরিক্ত অ্যালকোহলযুক্ত ডিওডরেন্ট ব্যবহার, ঘামে, হেয়ার রিমুভিং ক্রিমের ব্যবহার বা ওয়্যাক্সিং-এর কারণে বাহুমূলে কালচে ভাব দেখা হয়।

আন্ডারআর্মে ফুসকুড়ি, র‍্যাশ এবং জ্বালাপোড়ার কারণে হাইপারপিগ্মেন্টেইশন দেখা দিতে পারে।

যাঁদের গায়ের রং কিছুটা গাঢ় তাঁদের বাহুমূল কালো হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে বলে মনে করেন ত্বক বিশেষজ্ঞরা।

এছাড়াও বংশগত কারণে বাহুমূল কালচে হতে পারে।

আন্ডারআর্ম কালো হওয়ার আরেকটি কারণ হল পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিন্ড্রোম।

ডায়াবেটিসের কারণেও আন্ডারআর্ম কালচে হয়।

আবার অতিরিক্ত ঘামের কারণেও আন্ডারআর্মে কালচে ভাব দেখা দেয়। ঘামের কারণে বাহুমূল অতিরিক্ত আর্দ্র থাকে। এবং সেই স্থানে কালো হয়ে যাওয়ার প্রবণতাও বাড়ে।

আবার ঘামের কারণে অনেকে বেশি করে পাউডার মাখেন। সেই পাউডার এবং ঘামের মিশ্রণ বাহুমূলের কোষে জমে জমেও কালচে হয়ে যায়।

আন্ডারআর্মের পরিষ্কার করতে অনেকেই রেজার ব্যবহার করেন। তার থেকেও ত্বকে জ্বলুনি, প্রদাহ, র‍্যাশ ইত্যাদি হয় এবং তা সেরে যাওযার পরই আক্রান্তস্থানে কালচে ভাব থেকে যায়।

আন্ডারআর্মের কালচে ভাব দূর করার উপায়

বাহুমূলের কালচেভাব খুব তাড়াতাড়ি চলে যায় অ্যাক্টিভেটেড কার্বনের ব্যবহারে। যে কোনও আয়ুর্বেদিক অ্যাক্টিভেটেড কারবন কিনতে পাওয়া যায়। অনলাইনেও এটি কিনতে পাওয়া যায়। দাম নাগালের মধ্যে। দিনে একবার বা দুই করে ব্যবহার করলে দ্রুত কালচে ভাব চলে যায়।

নায়াসিনামাইড, অ্যাজেলাইক অ্যাসিড, রেটিনল এবং অন্যান্য উপাদান অর্থাৎ যেগুলি ত্বকের কালচেভাব কমাতে সহায়তা করে, সেগুলি ব্যবহার করা যায়।

অনেক সময়ে ওষুধের মাধ্যমে এই কালচেভাব দূর করা যায়। এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া ও নির্দেশিকা অনুসরণ করা উচিত।

বাজারে কিছু ডিওডরেন্ট পাওয়া যায় যেগুলি আন্ডারআর্মে ব্যবহার করলে কালচে ভাব চলে যায়। এর অর্থ সেই ডিওডরেন্টটি আপনার পক্ষে আদর্শ।

অল্প পরিমাণে রাসায়নিক ‘গ্লাইকোলিক অ্যাসিড’ বা ‘ল্যাক্টিক অ্যাসিড’ দিয়ে হালকাভাবে মালিশ করা যেতে পারে। তবে এসব স্থান অতিরিক্ত না ঘঁষাই ভালো।

প্রাকৃতিক উপায়েও বাহুমূলের কালচে ভাব দূর করা যায়। এক চামচ অলিভ অয়েলের সঙ্গে এক চামচ বাদামি চিনি মিশিয়ে বাহুমূলে স্ক্রাব করুন। মিনিট দুই স্ক্রাব করে কিছুক্ষণ রেখে তারপর জল দিয়ে ত্বক ধুয়ে নিন। প্রাচীনকালে মহিলারা এই পদ্ধতি ব্যবহার করতেন।

আন্ডারআর্মের কালচে ভাব দূর করতে বেকিং সোডা দারুণ কাজ দেয়। জল এবং বেকিং সোডা মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে বাহুমূলে সপ্তাহে দুবার স্ক্রাব করুন। পরে জল দিয়ে স্থানটি ধুয়ে ফেলুন। ধীরে ধীরে আন্ডারআর্মের কালচে বাব দূর হবে।

ভিটামিন ই সমৃদ্ধ নারকেল তেল প্রাকৃতিকভাবে ত্বক উজ্জ্বল করে। বাহুমূলে প্রতিদিন নারকেল তেল মালিশ করে পনের মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

অ্যাপেল সাইডার ভিনিগার ত্বকের মৃতকোষ দূর করে। দুই টেবিল-চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনিগারের সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে তা বাহুমূলে মেখে পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত আন্ডারআর্মে লাগালে কালচে ভাব দূর হয়।

লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচিং হিসেবে পরিচিত। স্নানের আগে প্রতিদিন অর্ধেকটা লেবু বাহুমূলের কালো অংশে দুতিন মিনিট ধরে ঘঁষে নিন। কয়েকদিনের মধ্যেই পরিবর্তন চোখে পড়বে।