ঘরোয়া এই উপায় গুলো মেনে দূর করুন পেটের সমস্যা

পেটের সমস্যায় (Stomach Problems) ব্যতিব্যস্ত বহু মানুষ। বহু চেষ্টার পরও মিলতে চায় না এই রোগ থেকে মুক্তি। তবে এবার এমন কিছু ঘরোয়া কৌশল (Home Remedies) সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক, যা আপনার পেটের স্বাস্থ্য উদ্ধারে সাহায্য করবে।

হাইলাইটস

পেটই হল স্বাস্থ্য ভালো রাখার অন্যতম চাবিকাঠি।

ফাইবার শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী ।

সমস্যা নিবারণে ঈষদুষ্ণ জলপান দারুণ কার্যকরী।

এই সময় জীবনযাপন ডেস্ক:

মানসবাবুর বড্ড পেটের (Stomach Problems)সমস্যা। প্রতিদিনই কিছু খান না খান বদহজম, গ্যাস (Gas), অম্বল (Acidity) লেগেই রয়েছে। তাই তিনি রোজ গ্যাসের ওষুধ খান। তবে ওষুধ খেয়েও সমস্যা তেমন মিটছে না। যতক্ষণ ওষুধ কার্যকরী থাকে ততক্ষণই শান্তি। ওষুধের কার্যকরিতা কমতে আবার সেই একই অবস্থা। এই সমস্যা থেকে পালানোর পথ খুঁজে পাচ্ছেন না মানসবাবু। তবে মানসবাবু একা নন, রোজকার এই ঝঞ্ঝাটে ভুগছেন অসংখ্য মানুষ। কেউ গ্যাস তো কারও অম্বল, কারও পেট ফাঁপা (Stomach Bloating) লেগেই রয়েছে।

বিশেষজ্ঞদের কথায়, আপনার পেটই হল স্বাস্থ্য ভালো রাখার অন্যতম চাবিকাঠি। পেট ভালো থাকলে আপনি ভালো থাকবেন। তাই যেনতেন প্রকারেন পেটে ভালো রাখতেই হবে। তবে মুশকিল হল, অনেকসময়ই এই ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সহজ হয় না। ওষুধও খুব কাজ দেয় না। তখন রাস্তা কোথায়? উপায় রয়েছে আপনার হাতের সামনেই। তাই বাড়িতেই মেনে চলুন এই নিয়মগুলি (Home Remedies)-

তামার পাত্রে জলপান-

বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে, তামার পাত্রে জলপান করা শরীর ও পেটের পক্ষে খুব উপকারী। তাই বিশেষজ্ঞরা বলে থাকেন, তামার পাত্রে জলপান করতে পারলে সবথেকে ভালো ফল মিলতে পারে। সেক্ষেত্রে রোজ সকালে উঠে তামার পাত্র থেকে জলপান করতে হবে। প্রতিরাতে তামার পাত্রে জল ভরে নিন। তারপর সকালে সেই পাত্র থেকে জলপান করুন। গবেষকরা দেখেছেন, সারারাত তামার পাত্রে ভিজে থাকার ফলে জলের মধ্যে তামার কিছু গুণ মিশে যায়। তাই এই জলপানে শরীরের সার্বিক উন্নতি হয়।

ফাইবার যুক্ত খাবার খান-

ফাইবার শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী এক খাদ্য উপাদান। এই খাদ্য পাচনতন্ত্র মজবুত করতে পারে। ফলে খাদ্য ভালোমতো হজম হয়। তাই খাবারের তালিকায় সবুজ শাকসবজি, ফল রাখতে হবে। এই ধরনের খাবারে রয়েছে ভালো পরিমাণে ফাইবার।

ঈষদুষ্ণ জলপান-

পেটের বিভিন্ন সমস্যা নিবারণে ঈষদুষ্ণ জলপান দারুণ কার্যকরী হতে পারে। তাই বিশেষজ্ঞদের কথায়, রোজ একগ্লাস করে ঈষদুষ্ণ জলপান করা উচিত। সবথেকে ভালো হয়, কেউ যদি সকালে খালি পেটে এই জলপান করতে পারেন।

এক্সারসাইজ-

পেট ভালো রাখার ক্ষেত্রে এক্সারসাইজের কোনও বিকল্প নেই। এক্সারসাইজ করলে বিপাক ভালো হয়, পাচনতন্ত্রের ক্ষমতা বাড়ে। তাই রোজ এক্সারসাইজ করা দরকার। এক্ষেত্রে প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করতে হবে। আর সপ্তাহে করতে হবে ন্যূনতম ১৫০ মিনিট। তবেই শরীর ও পেট ভালো থাকবে।

বাইরের খাবারে না-

পেট ভালো রাখতে গেলে বাইরে থেকে খাবার কিনে খাওয়া চলবে না। বাইরের খাবারে থাকে নানা ধরনের অশুদ্ধি। তাই সেই সকল খাবার খাওয়া পেটের পক্ষে ভীষণই ক্ষতিকর।