ঘরোয়া উপায়েই শীতে পা ফাটার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি মিলবে

শীতকালে পা ফাটার সমস্যায় অনেকেই ভুগে থাকেন। যা ভীষণ যন্ত্রণাদায়ক। সেই সঙ্গে এটি পায়ের সৌন্দর্যও নষ্ট করে। এছাড়াও অনেকেই এমন আছেন, যারা বারোমাসই পা ফাটার সমস্যায় ভুগেন। এদের মধ্যে অনেকের আবার পা ফেটে রক্তও বের হয়। এটি খুবই কষ্টদায়ক। দেখা যায়, এমন পরিস্থিতিতে ক্ষতস্থানে ধুলাবালি ঢুকে ইনফেকশন হয়। পায়ে সমস্যা হতে থাকে।

এই সমস্যার সমাধানে কর্ম ব্যস্ততায় প্রতিদিন সম্ভব না হলেও সপ্তাহে অন্তত একবার সময় দিন পায়ের প্রতি। কারণ নিয়ম করে পায়ের যত্ন নিলে এসব সমস্যা কখনোই হয় না। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক পায়ের যত্নে করণীয়-

>> প্রতিদিনের খাবার তালিকায় ভেজিটেবল অয়েল, সবুজ শাক-সবজি, অপরিশোধিত আটার রুটি এবং ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে। এতে করে আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিন ও পুষ্টির চাহিদা মিটবে।

>> পা ফাটা দূর করার জন্য স্ক্রাব খুবই কার্যকরী একটি উপায়। কেবল আবহাওয়ার জন্য নয়, শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেল, জিঙ্ক, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ইত্যাদি পুষ্টির অভাবেও পা ফাটতে পারে। স্ক্রাব করার ফলে পায়ের ও তলার সব ময়লা দূর হয়ে যাবে। স্ক্রাব শেষে অবশ্যই ভালো মানের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন।

>> একটি পাকা কলা ভালো করে চটকে পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার পেস্ট করা পাকা কলাটি পায়ের ফাটা অংশে লাগিয়ে দিন। প্রায় ১৫-২০ মিনিট রাখার পর হালকা গরম পানি দিয়ে ভালো করে পা ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন পা অনেক নরম হয়েছে।

>> রাতে ঘুমানোর আগে পা পরিষ্কার করা খুবই প্রয়োজন। ভালোভাবে পা ধুয়ে মাসাজ ক্রিম লাগিয়ে মোটা মোজা পরে ঘুমানো উচিত। নিয়মিত এভাবে করার ফলে সকালে দেখবেন পা নরম হয়ে আছে। এছাড়াও সবসময় খালি পায়ে চলাফেরা না করা ভালো।

>> হালকা গরম পানিতে একটি লেবুর রস মিশয়ে নিয়ে তাতে ২০ মিনিটের মতো পা ভিজিয়ে রাখুন। এরপর খসখসে একটি কাপড় দিয়ে হালকাভাবে ঘষতে থাকুন পা। এতে পায়ের মৃত কোষ ও ময়লা দূর হবে। সপ্তাহখানেক পর নিজেই এর উপকারিতা বুঝতে পারবেন।