সাধারন এই পাঁচ খাবারেই দ্রুত গলবে পেটের অতিরিক্ত চর্বি

নানা কারণে আমাদের ওজন বৃদ্ধি পেতে থাকে। তবে কারো কারো ক্ষেত্রে কেবল পেটের চর্বি বাড়তে দেয়া যায়। দীর্ঘ সময় টানা বসে থাকা, অতিরিক্ত জাঙ্ক ফুড খাওয়া ইত্যাদি পেটের চর্বি বাড়ার জন্য দায়ী। এছাড়া আপনার ঘুমের ধরন, প্রতিদিনের খাবার, হরমোন ইত্যাদি হতে পারে পেটে চর্বি জমার অন্যতম কারণ।

পেটে চর্বি শুধু শারীরিক সৌন্দর্যই নষ্ট করে না, এটি স্বাস্থ্যের জন্যও বিপজ্জনক। কারণ এটি ডায়াবেটিস, হৃদরোগসহ আরো অনেক দীর্ঘস্থায়ী রোগের কারণ হতে পারে।

একবার চর্বি জমতে শুরু করলে তা কমানো খুব কষ্টকর হয়ে পড়ে। তবে কিছু খাবার আছে যেগুলো পেটের চর্বি কমাতে সাহায্য করতে পারে। শরীরচর্চার সময় না পেলেও এই খাবারগুলো আপনার ওজন কমাতে কাজ করবে-

ফল

ফল হলো বিভিন্ন প্রকার ভিটামিন ও খনিজের একটি দুর্দান্ত উত্‍স। ফল খেলে তা আপনাকে দীর্ঘ সময়ের জন্য সতেজ রাখতে পারে, সেইসঙ্গে শরীরে পৌঁছে দিতে পারে সঠিক পুষ্টি। সাইট্রাস জাতীয় ফল যেমন লেবু, কমলা, বাতাবি লেবু ইত্যাদি চর্বি দূর করার ক্ষেত্রে বেশি কার্যকরী। ফল আমাদের শরীরের বিপাক প্রক্রিয়াও সহজ করে। পেটের চর্বি কমাতে তাই বেশি বেশি ফল খেতে হবে।

মাছ

মাছে থাকে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ও প্রোটিন। এই দুই উপাদান আমাদের শরীরের প্রদাহ কমায় এবং বিপাক ক্রিয়ায় সাহায্য করে। এর ফলে কমে পেটের চর্বিও। তাই পেটের চর্বি কমাতে খাবারের তালিকায় নিয়মিত মাছ রাখুন। চেষ্টা করুন মাছ কম তেল-মশলায় রান্না করে খেতে।

মরিচ

যারা ওজন এবং পেটের চর্বি কমানোর চেষ্টা করছেন তাদের জন্য কার্যকরী একটি খাবার হতে পারে মরিচ। দ্রুত পেটের চর্বি থেকে মুক্তি চাইলে নিয়মিত মরিচ খেতে হবে। প্রতিদিনের খাবারে কাঁচা মরিচ যোগ করুন। এটি প্রতিদিনের খাবারে বাড়তি স্বাদ যোগ করার পাশাপাশি ওজন ও পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

সবুজ শাক-সবজি

উপকারী সব খাবারের মধ্যে অন্যতম হলো সবুজ রঙের শাক-সবজি। এসব খাবার ফাইবার ও ভিটামিন সমৃদ্ধ। এগুলো দীর্ঘ সময় সতেজ রাখার পাশাপাশি অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ থেকেও দূরে রাখে। এ ধরনের শাক-সবজি সহজলভ্য এবং দ্রুত ওজন কমাতে কাজ করে। সেইসঙ্গে সহজ করে বিপাক ক্রিয়াকেও। সাহায্য করে হজমে, সুস্থ রাখে শরীর। পেটের মেদ কমাতে চাইলে নিয়মিত শাক-সবজি খান।

চিয়া বীজ

উপকারী চিয়া বীজ সম্পর্কে আপনি জেনে থাকবেন। এটি দ্রুত ওজন কমানোর জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি বীজ। শরবত, স্মুদি, সালাদ ইত্যাদি তৈরিতে ব্যবহৃত হয় এই বীজ। এটি প্রোটিন ও স্বাস্থ্যকর চর্বি সমৃদ্ধ। বিপাক ক্রিয়া ও হজমশক্তি উন্নত করতে এই বীজ বেশ কার্যকরী। প্রতিদিন অন্তত দুই টেবিল চামচ চিয়া বীজ আপনার পেটের চর্বি কমাতে কাজ করবে।