নতুন মা হওয়ার পরেই বেশিরভাগ মহিলা এই ভুলগুলো করে থাকেন, সচেতন হোন

মা হওয়ার পর একজন মহিলার ওজন অনেকাই বেড়ে যায়। চট করে এই ওজন কমিয়ে ফেলা সম্ভব নয়। নিজেকে একটু সময় দিন। ওয়ার্ক আউট করুন, স্বাস্থ্যকর খাওয়া দাওয়া করুন। ওজন আবার ধীরে ধীরে ঠিক কমে যাবে।

নয় মাসের গর্ভাবস্থায় একজন মহিলার শরীর নানা ধরনের পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যায়। তার মধ্যে একটা বড় পরিবর্তন হল কয়েক গুণ ওজন বেড়ে যাওয়া। গর্ভাবস্থায় মহিলাদের ওজন আগের চেয়ে অনেকটাই বেড়ে যায়। কী ভাবে এই ওজন কমিয়ে আবার আগের চেহারায় ফিরে যাওয়া সম্ভব হবে, সেটা মা হওয়ার পর প্রায় সব মহিলার কাছেই চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়।

মা হওয়ার পর ওজন কমানোর জন্য চেষ্টা শুরু করার আগে কয়েকটি বিষয় আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। সেগুলি নিয়েই আজ আমরা এখানে আলোচনা করব।

* ওজন কমাতে গেলে খাওয়া দাওয়ায় নিয়ন্ত্রণ আনতেই হবে। কিন্তু ইচ্ছেমতো খাওয়া কমিয়ে দিলে চলবে না। খেয়াল রাখবেন নতুন মা হিসেবে আপনার শরীর এখন ক্ষয় পূরণ করবে। যথাযথ পুষ্টি দিয়ে শরীরকে সারিয়ে ওঠার সময় দিতেই হবে। তার ওপর আপনি যদি সন্তানকে স্তন্যপান করান তাহলে আপনার অতিরিক্ত পুষ্টির প্রয়োজন। তাই প্রচুর পরিমাণে ফল ও সবজি আপনাকে খেতে হবে। বেশি তেল মশলাদার খাবার এড়িয়ে চলুন। নির্দিষ্ট রুটিন মেনে সময়ের হিসেব রেখে খান।

নবজাতকের প্রথম স্নান! এই বিষয়গুলি জানা আছে তো?

* একজন নতুন মা প্রচুর ব্যস্ত থাকেন। তাঁর চেনা পৃথিবীটাই যেন এক লহমায় বদলে যায়। কিন্তু হাজার ব্যস্ততার মধ্যেও নিজের জন্য কিছুটা সময় বের করতেই হবে। প্রথম দিকে মাত্র ১০ মিনিট সময় বের করে ওয়ার্ক আউট করুন। এরপর এই সময়টা ধীরে ধীরে বাড়ান। নিজের জন্য সময় বের করার অর্থ আপনি সন্তানকে বঞ্চিত করছেন না। আপনি ভালো থাকলেই আপনার সন্তানও ভালো থাকবে। তাই নিজের জন্য সময় বের করছেন বলে অপরাধবোধে ভুগবেন না।

* ব্যস্ততার কারণে জিমে গিয়ে ঘাম ঝরাতে পারবেন না। তাই বাড়িতেই ওয়ার্ক আউট করুন। বিকেলে শিশুকে নিয়েই হাঁটতে বেরোন। দুজনেরই কিছুটা ঘোরা হবে। ছোট ছোট পদক্ষেপ দিয়ে শুরু করুন। আস্তে আস্তে বড় ফল পাবেন।

* সোশ্যাল মিডিয়ায় তারকা মায়েরা কেমন চটজলদি ওজন কমিয়ে ফেলছেন, সেই দেখে নিজের সঙ্গে তুলনা করবেন না। সবার শরীরের ধরণ এক নয়। এর ফলে হতাশা ছাড়া আর কিছু জুটবে না। যিনি মা হওয়ার কয়েক মাসের মধ্যেই ওজন কমিয়ে একদম ছিপছিপে হয়ে গিয়েছেন, তাঁর হয়তো বাড়িতে সন্তানের দেখাশোনা করার জন্য অন্য কেউ আছে। তাই জিমে গিয়ে তিনি ঘণ্টার পর ঘণ্টা পড়ে থাকতে পারেন। আপনি আপনার মতো করে চেষ্টা করুন।

গর্ভাবস্থায় ধূমপান সন্তানের কী কী বিপদ ডেকে আনে জেনে নিন…

* সন্তানের জন্ম দেওয়ার পর এক ধাক্কায় কাজের পরিমাণ অনেক বেড়ে যায়। সব কাজ একা করতে যাবেন না। পরিবারের অন্যদের থেকে সাহায্য চাওয়ার মধ্যে লজ্জার কিছু নেই। আপনি যখন ব্যায়াম করবেন, তখন অন্য কাউকে সন্তানের দেখাশোনা করতে বলুন।

* গর্ভাবস্থায় আপনার ওজন একদিনে বাড়েনি। ধীরে ধীরে বেড়েছিল। তাই ওজন কমার প্রক্রিয়াও ধীরে ধীরে হবে। দু-একদিন ব্যায়াম করেই কেন ওজন কমছে না ভেবে অধৈর্য্য হয়ে পড়বেন না।