কৃতি ৩ মাসে যেভাবে তাঁর ওজন ১৫ কেজি বাড়িয়েছেন, জেনে নিন ডায়েট চার্ট

এমনিতে কৃতির চেহারায় মেদ খুঁজে পাওয়া যায় না। প্রথম থেকেই Kriti Sanon ফিটনেসের উপর আলাদা নজর দেন। সেই Kriti Sanon ছবির শুটিংয়ের জন্য দিনরাত খাচ্ছেন, মোটা হচ্ছেন। এক সাক্ষাৎকারে কৃতির জানিয়েছেন, ‘Mimi ছবিতে আমার চরিত্রটা বেশ চ্যালেঞ্জিং, তাই চরিত্রের জন্য শরীরের এই পরিবর্তন একটুও অসুবিধা হয়নি’।

‘মিমি’ ছবির জন্য প্রায় ১৫ কিলো ওজন বাড়িয়েছেন তিনি। যা কিনা খুবই পরিশ্রমের ব্যাপার। জানা যাচ্ছে, ছবিতে সারোগেট মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কৃতি শ্যানন। আর সেকারণেই ছবির প্রয়োজনে ওজন বাড়াতে হয়েছিল অভিনেত্রীকে।

Mimi-র জন্য কিছু কম কাঠখড় পোহাতে হয়নি Hot এবং গ্ল্যামারাস কৃতি শ্যাননকে, যদিও Kriti প্রতিদিন তার ফিটনেস নিয়ে ভক্তদের নজর কাড়েন, কিন্তু এই মুহূর্তে তিনি বাড়তি ওজনের জন্য শিরোনামে Kriti।

তিনি মিমিতে তার চরিত্র দিয়ে শুধু মানুষের হৃদয়ই জয় করেননি, বরং Weight Gain-এর মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় ফলোয়ারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন। আসুন, জেনে নিন Kriti Sanon-এর ডায়েট প্ল্যান। ওজন বাড়ানোর জন্য প্রতিদিনের রুটিন কেমন ছিল?

কৃতি ৩ মাসে তার ওজন ১৫ কেজি বাড়িয়েছে

ছবিতে সারোগেট মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কৃতি শ্যানন। আর সেকারণেই ছবির প্রয়োজনে ওজন বাড়াতে হয়েছিল অভিনেত্রীকে। ছবির গল্পে দেখা যায়, এক বিদেশি দম্পত্তির সন্তান চাই, কৃতির সৌন্দর্য মুগ্ধ করে তাঁদের, তাই কুড়ি লক্ষ টাকার পরিবর্তে সারোগেসির মাধ্যমে সন্তান চেয়েছিলেন ওই দম্পত্তি। কৃতির ওজন বাড়ানো দেখে হতবাক ভক্তরা। তাঁর পুষ্টিবিদ জানান, অভিনেত্রী মাত্র ৩ মাসে ১৫ কেজি ওজন বাড়িয়েছেন।

Kriti-র ভক্তের প্রশ্ন, কি ভাবে তিনি মোটা হতে পারেন?

আগে মানুষ কৃতি’র ওয়ার্কআউট ভিডিয়ো দেখে ফিটনেস অনুপ্রেরণা পেত এখন ওজন বাড়ানো বিষয়েও প্রশ্ন করছেন। মিমির জন্য ১৫ কেজি ওজন বাড়ানো খুব একটা সহজ ছিল না। এর জন্য, তিনি তার খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন করেছিলেন এবং কৃতি নিজেও এই সম্পর্কে বলেছিলেন। তিনি সবসময় পিৎজা ও বার্গার খেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

কৃতি ওজন বাড়ানোর জন্য কঠোর পরিশ্রমের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন, তাঁর এই দেহ রূপান্তরের প্রশংসা করছেন অনেকেই। ছবির ট্রেলারটি আগে মানুষের মধ্যে হৈচৈ শুরু হয়েছিল এখন গল্পটিও দর্শকদের পছন্দ হয়েছে।