জনপ্রিয় খাবার ‘মুড়িঘণ্ট’

বাঙ্গালিদের জনপ্রিয় খাবারের মধ্যে মুড়িঘণ্ট অন্যতম। খেতে দারুণ একটি খাবার মুড়িঘণ্ট। তাছাড়া পুষ্টিতে পরিপূর্ণও এই রেসিপিটি। তাই বাঙ্গালির খুব পছন্দের তালিকায় স্থান পায় এই খাবারটি।

সহজ পদ্ধতিতে সুস্বাদু করে রান্না করা যায় এই রেসিপিটি। চলুন তবে দেরি না করে জেনে নেয়া যাক কীভাবে রান্না করা হয় সুস্বাদু এই খাবারটি-

উপকরণ: বড় মাছের মাথা একটি (চাইলে মাছের পিস ও দিতে পারেন), মুগডাল এক কাপ, পানি আট কাপ, পেঁয়াজ বাটা দুই টেবিল চামচ, আদা বাটা দুই চা চামচ, রসুন বাটা দুই চা চামচ, মরিচ গুঁড়া দুই চা চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, জিরা বাটা এক চা চামচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, এলাচ দুটি করে, তেজপাতা দুটি, কাঁচা মরিচ পাঁচটি, ঘি দুই চা চামচ, সয়াবিন তেল আধা কাপ, লবণ স্বাদমতো। কাটা পেঁয়াজ বেরেস্তার জন্য এক কাপ ও বেরেস্তা ভাজার জন্য দুই টেবিল চামচ সয়াবিন তেল।

প্রণালী: একটি ফ্রাই প্যানে তেলে পেঁয়াজ ভেজে বেরেস্তা তৈরি করুন, বেরেস্তা হয়ে গেলে একটি পাত্রে তুলে রাখুন। অন্য একটি পাত্রে মাছের মাথা ভালেো করে ধুয়ে সামান্য হলুদ ও লবণ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন (মাছ দিলে মাছ ও ভেজে নিতে হবে)।

মুগডাল হালকা ভেজে নিন। এবার ম্যারিনেট করে রাখা মাছের মাথা তেলে এপিঠ ওপিঠ ভালো করে ভেজে ওই ভাজা তেলেই একে একে পেঁয়াজ, রসুন, আদাবাটা দিয়ে পাঁচ মিনিট ধরে ভাজুন।

এবারে এতে মরিচগুঁড়া , লবণ, সেদ্ধ ডাল দিয়ে ভালো করে নেড়ে পানি এবং সামান্য হলুদ দিয়ে ঢাকা দিন। চুলার আঁচ অবশ্যই কমিয়ে রান্না করুন। ডাল ভালো ভাবে সেদ্ধ হয়ে এর পানি কমে ঘন ভাব হয়ে এলে এর ওপর মাছের মাথা বা মাছের টুকরো গুলো ও কাঁচা মরিচ ছড়িয়ে দিন।

আরো পাঁচ মিনিট এর জন্য অল্প আঁচে ঢেকে রাখুন। পাঁচ মিনিট পর এর ওপর ঘি ও বেরস্তা দিয়ে আরো পাঁচ মিনিটের জন্য হালকা আঁচে ঢেকে রাখুন, এতে ডালের মধ্যে ঘি ও বেরেস্তার সুগন্ধ ছড়িয়ে যাবে ভালো ভাবে। চুলাবন্ধ করে দিন পাঁচ মিনিট পর। ব্যস তৈরি হয়ে গেলো বাঙালির ঐতিহ্যবাহী খাবার মুড়িঘণ্ট।