জেনে নিন ঘাড়ে কালো দাগের স্বাস্থ্য ঝুঁকি, সচেতন হোন

নানা কারণে ঘাড়ের পেছনে কালো দাগ দেখা দেয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানে এর নাম অ্যাকানথোসিস নাইগ্রিক্যানস। এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো ইনসুলিন হরমোনের অকার্যকারিতা। ওজনাধিক্যই এর প্রধান কারণ। এ ছাড়া অন্যান্য হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, বংশগত, বিভিন্ন ওষুধের কারণে বা পাকস্থলী বা ফুসফুসের ক্যানসারেও এমন হয়।

সঙ্গে কনুই, হাঁটু, হাত-পায়ের আঙুলের ওপরের অংশ, বগল, রানের ভাঁজ ইত্যাদি স্থানও অস্বাভাবিক কালো বর্ণ ধারণ করতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে চামড়ার ছোট ছোট দানা বা স্কিন ট্যাগ ঘাড়ে ও বগলে দেখা যায়।ঘাড়ের এই কালো দাগ যাঁদের থাকে তাঁদের ডায়াবেটিস, উচ্চ র’ক্তচাপ ইত্যাদি রোগের ঝুঁকি বেশি। ঝুঁকি কমাতে ওজন নিয়ন্ত্রণ, নিয়মিত ব্যায়াম, সুষম খাদ্যাভ্যাস জরুরি।

প্রয়োজনে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে রোগ নির্ণয় করে তার চিকিৎসা করতে হবে। ঘাড়ে কালো দাগের সঙ্গে দ্রুত ওজন বেড়ে চলা, মেয়েদের মাসিকে গোলমাল ইত্যাদি সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। চর্ম ও হরমোন বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অনুযায়ী কারণ দূর করা এবং যথাযথ ক্রিম বা অয়েন্টমেন্ট ব্যবহার করলে অনেকটাই সুফল মেলে।