মাঝে মধ্যেই গোড়ালি ব্যথা? জেনে নিন কারন ও প্রতিকার

সাধারণত জুতার সমস্যা, হাঁটাচলার সময় অসতর্কতার ফলে গোড়ালি মচকে যাওয়া এবং অতিরিক্ত ওজনের কারণে গোড়ালিতে ব্যথা হয়ে থাকে। এ ছাড়া গোড়ালিতে প্রদাহ এবং পায়ের গঠনগত কিছু সমস্যার কারণেও গোড়ালিতে ব্যথা হতে পারে।

হঠাৎ গোড়ালি মচকে গেলে কী করবেন?

গোড়ালি নাড়বেন না। একটা কাপড়ে বরফ পেঁচিয়ে নিয়ে ব্যথার স্থানে চেপে ধরুন। ক্রেপ ব্যান্ডেজ লাগিয়ে নিতে পারেন। এরপর পা উঁচু করে রাখুন। কাছের কোনো চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন।

গোড়ালি মচকে গেলে অনেকে পর্যাপ্ত বিশ্রাম না নিয়ে ব্যথানাশক সেবন করে কর্মক্ষেত্রে ফিরে যান, এটি ঠিক নয়।

দীর্ঘমেয়াদি গোড়ালি ব্যথা?

পায়ের স্ট্রেচিং ব্যায়াম করতে পারেন। পা দুটোকে টান টান করে রেখে পায়ের আঙুলগুলো নিজের দিকে টেনে আনতে চেষ্টা করুন। এতে পায়ের পেছন দিকে মাংসপেশির জোর বাড়বে। এর ফলে গোড়ালি ভারসাম্যে থাকবে।

শরীরের ভারসাম্য বাড়াতে কিছুক্ষণ এক পায়ে দাঁড়িয়ে থাকতে পারেন। দুই পায়েই আলাদাভাবে দাঁড়ানোর অভ্যাস করুন।

গোড়ালি ব্যথা প্রতিরোধ

* হাঁটাচলার সময় সতর্ক থাকুন। কোথায় পা ফেলছেন, তা দেখে চলুন। রাস্তায় পড়ে থাকা ছোট ইটের টুকরার কারণেও গোড়ালিতে ব্যথা হতে পারে। সিঁড়ি দিয়ে ওঠা-নামার সময় বিশেষ সতর্কতা প্রয়োজন। মুঠোফোনে কথা বলতে বলতে সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করবেন না। অন্ধকারে হাঁটবেন না। সিঁড়ির কাছে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা রাখুন। একবার গোড়ালি মচকে গেলে বারবারই তা মচকাতে পারে, কারণ গোড়ালি খুব মজবুত অস্থিসন্ধি নয়। তাই সতর্কতা জরুরি।

* ভালো জুতা পরুন। পেছন দিক থেকে গোড়ালিকে বাঁচিয়ে রাখে, এমন জুতা বেছে নিন। হাঁটাচলা করার সময় কেডস জুতা সবচেয়ে ভালো। একেবারে পা খোলা স্যান্ডেল ভালো নয়।