হাত ও পা ফর্সা করার ১৮ টি সহজ প্রাকৃতিক পদ্ধতি শিখে নিন

অনেক ভারতীয় নারী ও পুরুষের ইচ্ছে ফর্সা হাত ও পায়ের অধিকারি হতে। ক্রিম,মলম – এসব ব্যবহারের বাইরেও ভারতীয়রা অনেক ঘরোয়া পদ্ধতিও প্রয়োগ করে থাকে যাতে স্বাভাবিক ভাবে হাত ও পা ফর্সা করা যায়। যেসব জিনিসে ব্লিচিং মাধ্যম আছে সেগুলো ত্বক ফর্সা করার জন্য যোগ্য।

লেবু এরকমই এক উপদান।অনেকেই লেবু ব্যবহার করে থাকেন ট্যান (রোদে পোড়া কালো দাগ) সারাতে, ত্বকের বর্ণ উজ্জ্বল করতে, এমনকি ব্রণ সমস্যাও কমাতে। এরকমই আলুরও অনেক গুণ আছে এবং ঘরোয়া অনেক কিছুতে ব্যবহার করা যায় ফর্সা হাত পা পাওয়ার জন্য। দেখে ধনিন এই সহজ সরল অনেকগুলো ঘরোয়া পন্থা যে কোনও রকমের ত্বকের জন্য।

কিন্ত যাদের সংবেদনশীল ত্বক তারা আগে একটা ছোট্ট প্যাচ টেস্ট করে নেবেন এইসব উপাদানগুলি ব্যবহার করার আগে। আরও মনে রাখবেন ফল পেতে কিছুটা সময় তো লাগবেই। তাড়াতাড়ি ফল পেতে হলে এগুলো দিনে দুবার করে ব্যবহার করুন।

মধু ও শশা
মধুর সাথে শশার রস মিশিয়ে একটা মিশ্রণ বানান। পায়ে ও হাতে লাগান, ত্বকের উন্নতি হবে।

ওলিভ ওয়েল ম্যাসাজ
ওলিভ ওয়েল ম্যাসাজ করলে হাত ফর্সা হয় আর নরমও থাকে। আরও ভাল ফল পেতে গেলে, এর সাথে একটু কেশর মিশিয়ে নিলে ভাল হয়।

নারকোল জল
নারকোল জল হাত ও পা ফর্সা করার জন্য খুব ভাল। কোনও কালো দাগ কমাতে হাতে নারকোল জল সপ্তাহে দুবার লাগান।

আশ্চর্য্যকর লেবুর কাজ
শশার রস লেবুর সাথে মেশান। হাতে ও পায়ে মাখুন। এতে চামড়া ফর্সা হবেই।

দই
ত্বকে দই লাগালে হাত ফর্সা ও নরম হয়। এটা জিঙ্ক ও ল্যাকটিক এ্যাসিডের উৎস যেগুলো ত্বককে ফর্সা করে।

টমেটো
একটা টমেটো গ্রাইন্ডারে বেটে পেস্ট বানান। হাতে ও পায়ে এই বাটাটি লাগান। এটা আপনার ত্বকের বর্ণ ঠিক রাখবে ও আপনার চেহারায় শিগগিরি একটা ঔজ্জ্বল্য আনবে।

ডিম
আপনার ত্বক যদি তেলতেলে হয়, ফর্সা হাত পা পাওয়ার সেরা উপায় ডিম। ডিমের সাদা অংশ সপ্তাহে দুবার লাগান ও ফল দেখুন।

ওটমিল
টমেটোর সাথে ওটমিল ও দই-র মিশ্রণ বানান। এটা শরীরে লাগালে স্বাভাবিক ভাবে ফর্সা হওয়া যায়। হাত ও পায়ের জন্য এটা ভাল। এটা মৃত কোষ দূর করতেও সাহায্য করে।

দুধ ও পেঁপে
ফর্সা হাত, পা পাওয়ার জন্য বাড়িতে যা সব করা হয় তার মধ্যে এটা সবচেয়ে ভাল। মধু, গুঁড়ো দুধ ও পেঁপের মিশ্রণ বানান। খুব তাড়াতাড়ি দেখবেন ত্বকের রঙ বদলাচ্ছে।

দুধ
কাঁচা দুধ চামড়ার রঙ হালকা করে হাত পা ফর্সা করতে খুব কার্যকরি।

ভেজানো আলমন্ড বাদাম
রাতভর কিছু আলমন্ড বাদাম ভিজিয়ে রাখুন, তারপর ভাল করে বেটে নিন। পায়ে ও হাতে এটা লাগান। এটা সব ঘরোয়া পদ্ধতির মধ্যে অন্যতম সেরা।

চন্দন
মূলতানী মাটির সাথে চন্দন মিশিয়ে একটা মসৃণ পেস্ট বানান। মুখে ও হাতে লাগান।

গোটা জিরে
গোটা জিরে জলে ফোটান। জলটা ছেঁকে নিন। এই জলটা দিয়ে হাত ধুয়ে নিন। ফর্সা ত্বক পাবেন খুব তাড়াতাড়ি। এক সপ্তাহ এটা করুন – ভাল ফল পাবেন।

মুসুর ডাল
দুধ বা দই-র সাথে মুসুর ডাল মেশান। হাত পায়ে লাগান। ১৫মিনিট রেখে দিন। এটা আপনার বর্ণ উজ্জ্বল করা ছাড়াও আপনাকে অপূর্ব সুন্দর করে তুলবে।

কমলা লেবুর খোসা
লেবুর খোসা আরও একটা দারুণ ঘরোয়া উপাদান আপনার হাত পা ফর্সা করার জন্য। খোসাগুলো দুধ ও দই-র মধ্যে মেশান। ত্বকে লাগান ও রেখে দিন যতক্ষণ না শুকিয়ে যায়। ধুয়ে ফেলুন।

টাটকা কাটা লেবু
একটা লেবু নিন। হাতের ওপর ভাল করে ঘষে দিন। এটা একটা প্রাকৃতিক ব্লিচিং সামগ্রীর মত কাজ করে।

আলুর খোসা
আপনি যদি ফর্সা হতে চান, আলু সেই কাজটি করে দেবে। একটা আলু নিন, তার থেকে রস বানিয়ে একটা বাটিতে নিন। হাতে ও পায়ে লাগান। এই রসটি আপনার চামড়া ব্লিচ করবে এবং স্বাভাবিক ভাবে ফর্সা করবে।

দারচিনি ও মধু
হাফ চামচ করে মধু ও দারচিনি গুঁড়ো মেশান। তারপর সেটা আপনার হাত ও মুখে ভাল করে লাগান ফর্সা হওয়ার জন্য।