তালের কোণ পিঠা

মজাদার তালের পিঠার সুবাস ও স্বাদ দু’টোই সবাইকে মাত করে! তালের পিঠার কদর সব বাঙালির কাছেই সমান। ছোট বড় সবাই তালের বড়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন ঘরানার পিঠা খেতে পছন্দ করে। তবে কি তালের কোণ পিঠা খেয়েছেন? সুস্বাদু এই পিঠার রেসিপি দেয়া হলো। এটি তৈরি করে পরিবারসহ এর স্বাদ উপভোগ করুন।

উপকরণ: আতপ চালের গুঁড়া দেড় কাপ, সুজি আধা কাপ, ঘন তালের কাঁথ এক কাপ, বেকিং পাউডার এক চা-চামচ, ইস্ট দেড় চা-চামচ (এক কাপ কুসুম গরম ঘন দুধে গুলিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দেবেন। ইস্ট ফুলে উঠলে মেশাবেন), এক চিমটি লবণ, নারিকেল কুড়ানো এক কাপ বা ইচ্ছা মতো, ডিম ২টি, চিনি এক কাপ বা নিজের পছন্দ মতো কম বেশি করতে পারেন।

কাঁঠাল পাতা বা অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল। কাঁঠাল পাতা হলে, পানের খিলির মতো ভাঁজ করে নিতে হবে টুথপিকের সাহায্য।

আর অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল হলে, কোণের আকারে তৈরি করে নিন। যদি কাঁঠাল পাতা না থাকে। ৮ থেকে ১০টি তৈরি করুন।

প্রণালী: একটি বড় বাটিতে চালের গুঁড়া, সুজি, বেকিং পাউডার, লবণ আর চিনি মিশিয়ে ডিম ও আগেই করে রাখা দুধ-ইস্টের মিশ্রণটা দিন।

এবার তালের কাঁথ মেশান। হয়ে গেল খামির। এখন খামিরটা একটা গরম জায়গায় রেখে দিন পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা। এবার চুলায় পানি দিয়ে স্টিম ডেকচি বসান।

স্টিম ডেকচিটা এমন হতে হবে যেন তাতে তিন-চারটি চায়ের কাপ বসানো যায় বা ফুটা ওয়ালা স্টিলের স্টেইনার দিয়েও কাজ হবে।

এখন খামিরের সঙ্গে কুড়ানো নারিকেল মিশিয়ে নিন। একটা চা-চামচ দিয়ে কোণে তালের খামির ভরে উপরে কিছু নারিকেল ছিটিয়ে দিন।

একদম উঁচু করে খামির ভরবেন না। কারণ স্টিম বা ভাপ দেয়ার পর পিঠা ফুলে উঠবে।

এখন একটি কাপে ২টি করে কোণ রাখুন এবং স্টেইনারে বসিয়ে দিন সোজা করে। এভাবে বাকিগুলো করে নিন এবং ঢাকনা দিন পাঁচ থেকে ছয় মিনিট ভাপে হতে দিন।

তারপর ঢাকনা তুলে দেখুন পিঠা হয়েছে কিনা। যখন দেখবেন পিঠা ফুলে, একটু ফেটে ফেটে যাবে তখন বুঝতে হবে হয়ে গেছে। এবার নামিয়ে ফেলুন। সবগুলো পিঠা এভাবে তৈরি করে, গরম কিংবা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন।