জীবনে হতাশা থেকে মুক্তি পেতে এই ৬টি কাজ আপনাকে করতেই হবে

প্রেমে ব্যর্থতা কিংবা ক্যারিয়ারে অবনতির হতাশা থেকে মুক্তি পাওয়া কষ্টকর। এই বিষয়গুলো আপনাকে মানসিকভাবে ভেঙে ফেলতে পারে। মনে হতে পারে আর কোন আশার আলো নেই। পুরো জীবনটাই বৃথা। জীবনের কোনো না কোনো পর্যায়ে কম বেশি সবাই এমন হতাশায় ভোগেন। কিন্তু নতুন ভোরের স্বপ্ন দেখতে হবে। এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে।

‘দেহ’ আপনাকে হতাশা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য ৬টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে এই লেখাটি সাজিয়েছে। চলুন দেখে নিই, আপনাকে মানসিক ভাবে শক্তিশালী করতে করণীয় এসব বিষয়গুলো কী কী।

১. হতাশা থেকে মুক্তি পেতে নিজেকে ভালবাসুন

সবার আগে নিজেকে ভালোবাসতে হবে। আপনার কাছে মনে হতে পারে আরে আমি তো আমাকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি। কিন্তু কথাটা কি আসলেই সত্যি? যদি তাই হয়ে থাকে, তাহলে হতাশায় নিমজ্জিত হয়ে দিনের পর দিন অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন করছেন কেন? কাজ বা পড়াশোনায় মনোযোগ দিচ্ছেন না, ঘুমের রুটিন ঠিক নেই, খাওয়া দাওয়ায় অনিয়ম করছেন কেন? দিনশেষে ক্ষতিটা কিন্তু আপনারই হচ্ছে। কাজেই রুটিনমাফিক চলার চেষ্টা করুন। নিজেকে ভালোবাসার কোনো বিকল্প নেই। কেননা সবাই আপনাকে ছেড়ে চলে গেলেও আপনি কিন্তু আপনার সাথেই শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত থাকবেন।

২. পর্যাপ্ত ঘুম আপনাকে হতাশা থেকে মুক্তি দেবে

আমাদের শরীরকে একটা যন্ত্রের সাথে তুলনা করা যেতে পারে। আমরা আমাদের ব্যবহৃত মোবাইল বা ল্যাপটপকে কর্মক্ষম রাখার জন্য যেমন চার্জ দিই তেমনি আমাদের কার্যক্রম ঠিক রাখার জন্য প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময় ঘুম প্রয়োজন। রাতের পরিপূর্ণ ঘুম আমাদের মস্তিষ্কে সারাদিনের জমে থাকা টক্সিন বের করে করে দেয়। এজন্যই প্রতি রাতে ৭-৯ ঘণ্টার ঘুম অবশ্যই প্রয়োজন। যা আপনাকে পরের দিন কাজ করার জন্য মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত করবে। দেখবেন আপনার কাজ করতে অনেক ভালো লাগবে এবং কাজের প্রতি আগ্রহও বেড়ে যাবে।

৩. নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করবেন না

আপনার বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন সবাই নিজ নিজ জীবনে অনেক সুখী। অন্তত তাদের ফেসবুক, ইন্সটাগ্রামের ছবিগুলো তাই বলে। তাই আপনার জীবনের পাওয়া না পাওয়াগুলো তাদের সাথে তুলনা করে হতাশ হয়ে পড়েন। কিন্তু আপনি জানেন না, তারাও কোনো না কোনো না পাওয়ার যন্ত্রণায় কাতর। নিজের জীবনকে অন্যের জীবনের সাথে তুলনা না করলেই দেখবেন হতাশা কমে যাচ্ছে। নিজের যা আছে তাই নিয়ে সন্তুষ্ট থাকুন।

৪. কাজে গভীর মনযোগ হতাশা থেকে ‍মুক্তি দেয়

হতাশাগ্রস্ত অবস্থায় কাজ বাদ দিয়ে ব্যর্থতার কথা মনে করবেন না। বরং আগের চেয়ে বেশি পরিশ্রম করুন। যখন আপনার চাকরি হচ্ছে না বা ব্যাবসাতে আশানুরূপ ফল পাচ্ছেন না তখন সেই সময়টাকে কাজে লাগান। নতুন স্কিল অর্জন করুন। জীবনে কী হারিয়েছেন সে চিন্তা বাদ দিয়ে সামনে নিজেকে কোথায় দেখতে চান সেই লক্ষ্যে কাজ করে যান।

৫. ভালো লাগা গুলোকে প্রাধান্য দিন

মানুষ ভেদে মানুষের ভালোলাগাগুলোও ভিন্ন। কেউ বই পড়তে ভালবাসে, কেউ আঁকাআঁকি করতে ভালোবাসে। কারো সমুদ্র পছন্দ তো কারো পাহাড়। জীবনের একঘেয়েমি কাটাতে কিংবা হতাশা থেকে বের হতে মাঝে মধ্যে নিজের ভালোলাগার কাজগুলো করতে পারেন। খুঁজে বের করুন কোন কাজগুলো আপনার ভালো লাগে। ছুটির দিনগুলোতে ভ্রমণে চলে যেতে পারেন পছন্দের কোন জায়গায়।

৬. আত্মতৃপ্তি থেকে হতাশা থেকে মুক্তি

কাজ যেটা করতে ভালো লাগে সেটাই করুন। সফল হওয়ার জন্য এমন কোনো কাজ করবেন না যেটাতে শিরোপা পাবেন ঠিকই কিন্তু আত্মতৃপ্তি পাবেন না। আপনার কাজ যখন আপনাকে আনন্দ দেবে, মনে যোগ করবে শান্তি, তখন এমনিতেই ভালো থাকবেন। অনেক টাকা মানেই কিন্তু সফল না। আপনি তখনই সফল যখন আপনি নিজে তৃপ্ত।

প্রিয় পাঠক, আপনি হতাশ হয়ে পড়লে কী করেন, তা আমাদের জানান। হতাশা থেকে মুক্তি পেতে আপনার কোনো পরামর্শ থাকলে আমরা সাদরে তা গ্রহণ করবো। ধন্যবাদ দেহ’র সাথে থাকার জন্য।