জেনে নিন কোন খাবার আমাদের পেটে কত সময়ের মধ্যে হজম হয়

ওজন কমার উপর হজমের প্রভাব খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা প্রায় সময়ই বলে থাকি যে, কোন সময় কি খাওয়া উচিৎ। অবশ্যই, যথাযথ হজম হওয়ার সময় একজন ব্যক্তির শারীরিক স্বাস্থ্য, বিপাক, বয়স এবং এমনকি লিঙ্গের উপর নির্ভর করে। তবে, সাধারণভাবে কোন খাবার কোন সময় খাওয়া উচিৎ এবং সেগুলো আপনার হজম প্রক্রিয়ার কি প্রভাবে ফেলে তা জেনে রাখা ভাল।

আমরা যে সমস্ত খাবার খাই সেগুলো হজম হতে সবচেয়ে বেশি সাহায্য করে পাচনতন্ত্র। আমরা যে খাবারগুলো গ্রহণ করি তা ক্ষুদ্র কণায় ভেঙ্গে যায় এবং অন্ত্রের সিস্টেমের মাধ্যমে রক্ত প্রবাহে স্থানান্তরিত হয়। হজম পাচন প্রক্রিয়ার উপর নির্ভর করে। তাই সঠিক সময়ে সঠিক খাবারটি বাছাই করা এবং সুস্বাস্থ্যের জন্য খাবারের কার্যকারিতা জানা অত্যন্ত জরুরী।

দ্রুত-হজমের খাদ্য

আপনি যদি দ্রুত হজম হওয়া খাবারগুলো বেশি পরিমাণে খেয়ে থাকেন, তাহলে আপনি দেখতে পাবেন যে আপনার যতটুকু খাওয়া উচিৎ ছিল তার থেকে আরো বেশি খাচ্ছেন। কারণ সেগুলো খাওয়ার পর অতি দ্রুত হজম হয়ে যায় এবং পুনরায় ক্ষুধা অনুভূত হয়। এই ধরনের খাদ্য আপনাকে দ্রুত গতিতে শক্তি দেয় ঠিকই, কিন্তু অন্যদিকে গ্লুকোজের স্তর ছিটকে পড়ে। শরীরে গ্লুকোজের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলে কর্মশক্তি বৃদ্ধি পায় এবং এটি যদি ব্যবহৃত না হয় তবে বাকিগুলো চর্বিতে পরিণত হয়।

ধীর গতির হজমের খাদ্য

ধীর গতির হজমের খাদ্য রক্তে শর্করার মাত্রা আরো ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করে, আরো স্থিতিশীল করে এবং সুষম শক্তি প্রদান করে। কিন্তু আপনি যদি শুধুমাত্র খুব ধীর গতির হজমের খাদ্য গ্রহণ করেন, তাহলে আপনার পাচক সিস্টেম সর্বোচ্চ সময় কাজ করতে এবং এটি আপনার শরীরের উপর বেশ কঠিন হতে পারে।

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন, যাতে এক খাবারে দ্রুত এবং ধীর গতির খাবার মেশানো না হয় এবং ধীর গতির খাবার খাওয়ার পর খুব দ্রুত ফাস্ট ফুড খাওয়া এড়িয়ে চলুন। কারণ পাচন এখনো শেষ হয় নি। তাই আপনার পেট ওভারলোড করার প্রয়োজন নেই।

দিনের বেলায় হজম সিস্টেম সবচেয়ে সক্রিয় থাকে, তাই লাঞ্চের সময় বিভিন্ন উপাদানের খাদ্য গ্রহণ করা সেরা সময়। সকালের নাস্তা এবং রাতের খাবার হালকা হওয়া উচিৎ, যেগুলো সহজে হজম হয়। যাতে আপনি সকালের নাস্তার পর খুব শীঘ্রই শক্তি পেতে পারেন এবং রাতে আপনার পাকস্থলীকে বিশ্রাম দিন।

১. পানি

অবিলম্বে অন্ত্রের মধ্যে প্রবেশ করে

২. ফল এবং সবজির জুস

১৫-২০ মিনিট

৩. কাঁচা সবজি

৩০-৪০ মিনিট

৪. রান্না করা সবজি

৪০ মিনিট

৫. মাছ

৪৫-৬০ মিনিট

৬. তেলসহ সালাদ

১ ঘন্টা

৭. শ্বেতসার সবজি

১.৫০- ২ ঘন্টা

৮. খাদ্যশস্য (চাল, বীজ জাতীয়)

২ ঘন্টা

৯. দুগ্ধজাতীয় পণ্য

২ ঘন্টা

১০. বাদাম

৩ ঘন্টা

১১. মুরগী

১.৫০-২ ঘন্টা

১২. গরুর মাংস

৩ ঘন্টা

১৩. ভেড়ার মাংস

৪ ঘন্টা

১৪. শূকরের মাংস

৫ ঘন্টা

আপনি কি আরো ধীর-হজম বা দ্রুত-হজমের খাবার খাবেন? আপনার চিন্তাগুলো কমেন্টে শেয়ার করে জানান। সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।