গুরুতর আঘাত নিয়ে হাসপাতালে পুনম পান্ডে, শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে ফের গ্রেফতার স্বামী

*অভিনেত্রী পুনম পান্ডেকে (Poonam Pandey) শারীরিক নির্যাতনের (physically assault) অভিযোগে ফের গ্রেফতার স্বামী পরিচালক,

নির্দেশক তথা এডিটর সাম বম্বে (Sam Bombay)। সংগৃহীত ছবি।

*চোখ, মাথা এবং মুখে আঘাত পেয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন (hospitalised) পুনম। সোমবার সামকে গ্রেফতার করে মুম্বই পুলিশ। সংগৃহীত ছবি।

তবে এটাই প্রথমবার নয়। বিয়ের মাত্র ১৫ দিনের মধ্যেই ২০২০ সালে সাম গ্রেফতার হয়েছিলেন। সে বারে অভিনেত্রী পুনম পান্ডে (Poonam Pandey) সামের (Sam Bombay) বিরুদ্ধে হেনস্থা, শ্লীলতাহানি এবং হুমকির অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। পরে জামিন পেয়ে মুক্ত হন তিনি। সংগৃহীত ছবি।

*প্রথমবারে বিয়ের ১৫ দিনের মধ্যেই সামের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বিয়ে থেকে অব্যাহতির কথা বলেছিলেন পুনম। সে বারে সাম (Sam Bombay) গ্রেফতার হন গোয়া (Goa) থেকে। সংগৃহীত ছবি।

*পুনম বিয়ের পরেই জানিয়েছিলেন, তাঁর বিয়ের সিদ্ধান্ত ভুল ছিল। কারণ, সামের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কতা সবসময়েই অস্বাস্থ্যকর (abusive)। তিনি জানিয়েছিলেন সাম তাঁর সঙ্গে পশুর মতো আচরণ করেন। তাঁকে মারধর পর্যন্ত করা হয় নিয়মিত। সংগৃহীত ছবি।

*২০২০ সালে অভিযোগ দায়েরের সময়ে পুনম জানিয়েছিলেন, তাঁদের কোনও একটি বিষয়ে মতের মিল হয়নি। সেই রাগে সাম তাঁকে মারধর শুরু করে দেন আচমকাই। একসময়ে তাঁর মনে হয়েছিলেন, সেদিন হয়ত তিনি আর বেঁচে থাকবেন না। সংগৃহীত ছবি।

*কারণ, তাঁকে ঘুষি, লাথি মারা হয় এলোপাথারি। এমনকি বিছানার কনে মাথা ঠুকে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তুকনও মতে হাত ফস্কে পালাতে সক্ষম হন তিনি এবং পালিয়ে যান। সংগৃহীত ছবি।

*এ বারেও ঘটনা খানিকটা তেমনই। জানা গিয়েছে, পুনমের শারীরিক অবস্থা ভাল না। তাঁর মাথা, হাত, মুখ এবং চোখে গুরুতর চোট রয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। সংগৃহীত ছবি।

*উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর সাত পাকে বাঁধা পড়েন পুনম পান্ডে (Poonam Pandey) এবং সাম বম্বে (Sam Bombay)। তার আগে ৩ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ ছিলেন তাঁরা। লিভ-ইন করতেন। সংগৃহীত ছবি।

*কিন্তু বিয়ের পর থেকেই শুরু হয় সমস্যা। হানিমুন থেকেই ফিরে পুনম সামের বিরুদ্ধে প্রথমবার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। সংগৃহীত ছবি।