পেঁয়াজ কাটতে গিয়ে চোখে পানি আসছে? মুক্তির সহজ উপায় জেনে নিন

পেঁয়াজ কাটতে গিয়ে চোখে কম বেশি সবারই পানি আসে। পেঁয়াজের জৈব-রাসায়নিক গঠনের কারণে পেঁয়াজ কাটলে তা থেকে ঝাঁঝ বের হতে থাকে। পেঁয়াজে আছে অ্যাল্লিনেস নামে এক ধরনের উৎসেচক। সেগুলো সালফেনিস অ্যাসিডের কোনও অণুর সঙ্গে মিশলেই ল্যাক্রিমেটরি ফ্যাক্টর নামে এক ধরনের উদ্বায়ী পদার্থ উৎপন্ন হয়। এই কারণে পেঁয়াজ কাটলে বাতাসে তার ঝাঁঝালো গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে এক নিমেষে। এখন কথা হলো পেঁয়াজ কাটবেন কিন্তু ঝাঁঝ লাগবেনা কীভাবে সম্ভব। চলুন জেনে নেওয়া যাক।

পেঁয়াজ কাটার সময় করণীয়:

– পেঁয়াজ কাটার সময় ধারালো ছুরি বা বটি ব্যবহার করুন। এর ফলে পেঁয়াজের কোষ কম ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং ল্যাক্রিমেটরি ফ্যাক্টর নামে এক ধরনের উদ্বায়ী পদার্থটি কম নির্গত হবে।

ফলে চোখে পানি আসার সম্ভাবনা কমে।

– পেঁয়াজের গোড়া এবং মাথায় সবচেয়ে বেশি এনজাইম থাকে। তাই আগেই পেঁয়াজের মুখ একটু বেশি করে কেটে নিন।

– চুলার সামনে বা ওভেনের সামনে পেঁয়াজ কাটুন। আগুনের সালফার পেঁয়াজের এনজাইমকে নষ্ট করে দেয়। এতে চোখ জ্বালা করার সম্ভাবনা কমে যায়।

– খোলা জায়গায় যেমন জানালার পাশে বা ভেন্টিলেটর চালু করে পেঁয়াজ কাটুন। এতে পেঁয়াজের চোখ জ্বালানি গ্যাস তাড়াতাড়ি বেরিয়ে যায়।

– পেঁয়াজের মুখটি কেটে মিনিট দশেক পানিতে ভিজিয়ে রাখন। তারপর পেঁয়াজ কাটলে চোখ জ্বালা করবে না।

– পেঁয়াজ কাটার আগে সেটি মিনিট পনেরো ফ্রিজে রেখে দিন। চাইলে বরফ পানিতেও রাখতে পারেন। এর ফলেও চোখ বাঁচবে।

– পেঁয়াজ যদি খুব দ্রুত গতিতে কাটতে পারেন তাহলেও চোখে পানি আসার সম্ভাবনা কমে।

– ফ্যানের নিচে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ কাটলেও চোখ জ্বালা তুলনামূলক কম হয়।

– আরেকটি বিষয় হলো পেঁয়াজ কাটার সময় বড় সাইজের রোদ চশমা কিংবা সাঁতার কাটার চশমা পরে নিতে পারেন। এটি দারুণ উপকারী। চোখে পেঁয়াজের ঝাঁঝ যাবে না।

উপরের বিষয়গুলোর যেকোন একটি মেনে চললে পেঁয়াজের ঝাঁঝ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।