ঘরেই তৈরি করুন ভিন্ন স্বাদের ‘মশালাদার মাছ খিচুড়ি’

এখন বর্ষার মৌসুম। যখন তখন বৃষ্টি হতে আরম্ভ করে। সেই সঙ্গে সবার খাবারের স্বাদও বদলে যায়। বৃষ্টিতে খিচুড়ি খেতে পছন্দ করেন অনেকেই। পরিবারের সঙ্গে খিচুড়ি উপভোগ করে সুন্দর কিছু মুহূর্ত কাটাতে কার না ভালো লাগে? তবে সবসময় একই স্বাদের খিচুড়ি না খেয়ে এবার একটু ভিন্ন স্বাদের খিচুড়ি পরিবেশন করুন খাবারের টেবিলে। তাই খুব সহজেই তৈরি করে ফেলুন মশালাদার মাছ খিচুড়ি। যা পুষ্টিতেও পরিপূর্ণ। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক রেসিপিটি-

উপকরণ: পোলাও চাল ১ কাপ, বাছা মাছের কাঁটা ছাড়া ফিলে টুকরা ২ কাপ, মুগ ডাল ২ টেবল চামচ, মটরশুটি আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন কুচি ২ চা চামচ, আদা মিহি কুচি ২ চা চামচ, শুকনো মরিচ ফালি করা ১ চা চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়ো ২ চা চামচ, জিরা গুঁড়ো ১ চা চামচ, আস্ত জিরা আধা চা চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, ঘি আধা চা চামচ, ধনেপাতা মিহি কুচি ২ টেবিল চামচ।

প্রণালী: প্রথমে মাছের ফিলে-গুলোকে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস, আধা চা চামচ লেবুর মিহি খোসা, অল্প অলিভ অয়েল আর অল্প লবণ দিয়ে মাখিয়ে রাখুন ১ ঘণ্টা।

একটি পাত্রে চাল আর ডাল একসঙ্গে নিয়ে ধুয়ে আধা ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এখন হাড়িতে তেল দিন। তেল গরম হয়ে আসলে এতে আস্ত জিরা দিন। জিরা ফুটে উঠলে এতে পেঁয়াজ কুচি দি‍য়ে বাদামী করে ভেজে নিন।

এবার এতে আদা কুচি, রসুন কুচি, শুকনো মরিচ ফালি, হলুদ গুঁড়ো, মরিচ গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো, লবণ পরিমাণমতো আর অল্প পানি দিয়ে মশলা কষিয়ে নিন।

এবার পানিতে ভিজিয়ে রাখা চাল ও ডাল দিয়ে নাড়াচাড়া করে রান্না করুন ৩ থেকে ৪ মিনিট। এখন এতে ২ কাপ গরম পানি ও মটরশুঁটি দিয়ে নেড়ে নিন। এবার এতে ধনেপাতা মিহি কুচি ও মেরিনেট করে রাখা মাছের টুকরাগুলো আলতো করে ছড়িয়ে দিন।

এভাবে ঢাকনা লাগিয়ে মিডিয়াম আঁচে রান্না করুন চাল সিদ্ধ হবার আগ পর্যন্ত। এতেই মাছ সিদ্ধ হয়ে যাবে এবং পানি পরিমাণমতো দিলে খিচুড়ি ঝরঝরে হবে।

মনে রাখবেন মাছ দেবার পর নাড়াচাড়া করলে মাছ ভেঙে যাবে। খিচুড়ি হয়ে আসলে নামানোর আগে অল্প ঘি, টমেটো, পেঁয়াজ, ধনেপাতা ছড়িয়ে দিন। ব্যস এবার সালাদের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন সুস্বাদু মশালাদার মাছ খিচুড়ি।