আজের এই চড়া বাজারে সংসারের খরচ বাচানোর সহজ ৭ উপায় শিখে নিন

দ্রব্যমূল্যের বাজারে আগুন। বাড়ছে গণপরিবহন ভাড়াও। নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনে মাস শেষে সঞ্চয় করা কষ্টসাধ্য হয়ে উঠছে। কিন্তু সংসারে খরচ কমানোর তাগিদ সবারই থাকে। কারণ সংসার খরচ যত কমানো যাবে, ততোটুকু সঞ্চয় হবে প্রতি মাসে।

অনেকেই আছেন, যারা মাসে যা উপার্জন করেন; সবটাই সংসারে খরচ করে ফেলেন। আসলে যা উপার্জন করছেন, তার ব্যয় ও সঞ্চয়ের ক্ষেত্রে যদি ভারসাম্য না তৈরি করতে পারেন, তাহলে অদূর ভবিষ্যতে সমস্যায় পড়তে হবে।

সংসার খরচ কমানোর ৭ উপায়—

কার্ড নয় নগদ টাকা

কেনাকাটার সময় ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডের পরিবর্তে নগদ টাকা ব্যবহার করুন। কারণ কার্ড ব্যবহারের ফলে ঠিক কতটা খরচ হচ্ছে, সে হিসাব রাখা মুশকিল। কারণ কার্ড ব্যবহারের ফলে অনেক সময় ট্যাক্স বাবদ খুচরা কয়েক টাকা কেট নেওয়া হয়। এ খরচগুলো এড়াতে নগদ টাকা ব্যবহার করুন কেনাকাটায়।

বিদ্যুতের অপচয় কমান

সংসার খরচ অনেকাংশেই বেড়ে যায় ঘরে থাকা ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতির কারণে। তাই যেসব বৈদ্যুতিক যন্ত্রগুলো সরচরাচর ব্যবহার করেন না; সেগুলোর বিদ্যুৎসংযোগ বন্ধ রাখুন। এতে বিদ্যুতের অপচয় কমবে। যখন প্রয়োজন হবে; তখনই সংযোগ চালু করুন।

পুরোনো জিনিস বেচে সঞ্চয় করুন

অনেক সময় ঘরের বিভিন্ন আসবাব থেকে শুরু করে অনেক কিছুই পুরোনো হয়ে যায়। বর্তমানে বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বিভিন্ন গ্রুপে পুরনো জিনিসপত্র ক্রয়-বিক্রয়ের সুবিধা আছে। চাইলে ঘরের অপ্রয়োজনীয় পুরনো জিনিস বিক্রি করে দিন। এতে কিছুটা টাকা-পয়সাও হাতে আসবে।

মূল্যছাড়ের দিকে নজর রাখা

কেনাকাটার সময় বিভিন্ন উপলক্ষ্য বা আয়োজনকে কেন্দ্র করে কিনুন। এতে মূল্যছাড় পাবেন। টানাটানির সংসারে মূল্যছাড়ের সময় কেনাকাটা করলে অনেক সাশ্রয় হয়। কোনো গিফট ভাউচার পেলে সেটাও ব্যবহার করুন।

গেট টুগেদার হোক ঘরে

ঘুরতে যেতে সবারই মন টানে। তাতে খরচ তো হয়ই। তবে ঘুরতে না গেলেও আবার নয়। তবে প্রতি সপ্তাহে ঘোরাঘুরি করে টাকা নষ্ট না করে ঘরেও আয়োজন করতে পারেন স্বল্প খরচের মধ্যে।

কেনা খাবারে নজর কমান

মাঝেমধ্যে রেস্টুরেন্টে খাওয়ার ইচ্ছে হতেই পারে। তবে খরচের বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়ে অযথা খাবার টেস্টের জন্য অর্ডার না করে যেটা খেতে পারবেন, সেটাই খান।

মোবাইল বা টেলিফোন বিল কমান

মোবাইলে মাসিক কোন প্যাকেজ ব্যবহার করলে কম রেটে বেশি কথা বলা যাবে বা কত টাকায় কত মিনিট ও কত ইন্টারনেট পাওয়া যাবে সেসব বিষয়েও ধারণা রাখুন। এসব ছোট ছোট হিসাবগুলো কষা থাকলে সংসারের খরচ অনেকখানি বাঁচবে। সেইসঙ্গে কোন বিষয় বাবদ বেশি খরচ হচ্ছে; সেটিও মাথায় থাকবে।