ঝটপট ও সহজে ভুঁড়ি পরিষ্কার করে যেভাবে সংরক্ষণ করবেন

গরুর ভুঁড়ি খেতে পছন্দ করেন অনেকেই। তবে ভুঁড়ি পরিষ্কার করা খুবই সময় সাপেক্ষ ও ঝক্কির কাজ। বিশেষ করে কোরবানির সময়। এ সময় যেমন হাতে সময় কম থাকে, তেমনি ভুঁড়িও থাকে একদম অপরিষ্কার অবস্থায়। জেনে নিন দ্রুত ভুঁড়ি পরিষ্কার ও সংরক্ষণ করবেন কীভাবে।

প্রথমেই কাঁচি দিয়ে ভুঁড়ি কয়েকটি বড় টুকরা করে নিন। পানিতে গরম করে সেদ্ধ করে নিন ভুঁড়ি। চুলা থেকে নামিয়ে গরম থাকা অবস্থায়ই হাতে গ্লাভস পরে চামচ দিয়ে ঘষে উঠিয়ে ফেলুন ময়লা।

প্রাথমিকভাবে পরিষ্কার করা হয়ে গেলে একটি বড় প্যানে পরিমাণ মতো পানি গরম করুন। এমন ভাবে পানি নেবেন যেন ভুঁড়ির টুকরা ডুবে থাকে। ১ চা চামচ হলুদের গুঁড়া দিয়ে দিন পানিতে। কেটে রাখা ভুঁড়ির টুকরা দিয়ে দিন। বলক ওঠা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর তেল ও ময়লা ভেসে উঠবে। ঝাঁঝরিতে উঠিয়ে পানি ঝরিয়ে ফেলুন। গরম অবস্থায় চামচ দিয়ে চেঁছে ময়লা উঠিয়ে ফেলুন বাকি ময়লা। বিশেষ করে চর্বির অংশে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করতে হবে ভালো করে। পেছনের অংশের পাতলা আবরণ উঠিয়ে ফেলতে পারেন চাইলে। তাহলে আরও দ্রুত পরিষ্কার হবে ভুঁড়ি।

চাইলে চুনের সাহায্যেও ঝটপট পরিষ্কার করতে পারেন বট বা ভুঁড়ি। এজন্য একটি গামলায় পানি ও কয়েক টেবিল চামচ চুন নিন। পানিতে ভালো করে গুলে নিন চুন। আধা ঘণ্টা ভুঁড়ির টুকরা ডুবিয়ে রাখুন চুনমিশ্রিত পানিতে। চামচ দিয়ে কালো অংশ চেঁছে উঠিয়ে ফেলুন। পরিষ্কার করা হলে কাঁচি অথবা বটি দিয়ে ফিতার মতো কেটে মাঝখান থেকে ছোট ছোট টুকরা করুন। কাটার পর আবারও সেদ্ধ করে নিন।

এতে ভুঁড়ির দুর্গন্ধ দূর হবে। সেদ্ধ করার পানিতে ২ টুকরা দারুচিনি, তেজপাতা, কয়েকটি এলাচ ও লবঙ্গ দিয়ে নিন। ৫ মিনিট ফুটে ওঠার পর তারপর দেবেন ভুঁড়ির টুকরা। ভালো করে সেদ্ধ করুন ভুঁড়ি। বলক ওঠার পর আরও ১০ মিনিট সেদ্ধ করুন। নামিয়ে পানি ঝরিয়ে কয়েকবার ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ঠাণ্ডা হলে ছোট জিপলক ব্যাগ কিংবা মুখবন্ধ বাটিতে করে ফ্রিজে রেখে দিন ভুঁড়ি।