প্রতিদিনের রূপচর্চায় কিছু প্রচলিত ভুল এড়িয়ে চলুন

আড্ডায় বসেই জানতে পারলেন অমুক বিশ্বসুন্দরী অমুক পদ্ধতিতে ত্বকের জেল্লা রক্ষা করেন৷ ফেসবুকে ঢু মারলেই বৈদেশিক প্রোডাক্টের বিজ্ঞাপন। সবগুলোর কথা ওই একই – সুপ্রাচীনকাল থেকেই অনেকে এই পদ্ধতি বা উপকরণের সাহায্যে ত্বকের যত্ন নিচ্ছেন। এমন পণ্যের তো আর অভাব নেই৷ আবার নিজের বান্ধবীর ভরসা ব্র্যান্ডে। এসব কিছুর মধ্যে আপনি এতটাই হতবুদ্ধি হয়ে পড়েন যে আপনার ত্বক কি রকমের তা বেমালুম ভুলে যান৷ এতদিনে আমরা এতটুকু জেনে ফেলেছি প্রত্যেকের ত্বকের ধরণ আলাদা। ফলে অনেক সময় কার্যকরী পণ্যেও ত্বকে এলার্জি হয়ে যেতে পারে৷ তবু আমরা ভুল করে ফেলি।

অবশ্য প্রচারণা অথবা বিজ্ঞাপনের চমকে পা দেয়াটাকে আপনারই ভুল বলা যায়না। কিন্তু আবেগকে সংযত রাখলে অনেক ভুল তথ্যকে সঠিক বলে মেনে নেয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে। প্রচলিত কিছু ভুল ধারণা আজই নাহয় ভেঙে ফেলুন:

মেকআপের জন্যে ওয়াইপ প্রয়োজন নেই

মেকআপ তোলার জন্যে নারকেল তেলই যথেষ্ট। কিন্তু অনেকে শখ করে এলকোহল দেয়া ফেসিয়াল টিস্যু কিনে আনেন৷ অনেকের ত্বকে এলকোহল লাগলে প্রদাহ বা জ্বলুনি হয়। তাই হাতের কাছেই সহজ সমাধান বাদ দিয়ে ট্রেন্ডে পা দিবেন না।

জিনিস যেটা ভালো, দাম তার একটু বেশি

বাংলাদেশে অনেকেই দামের ভিত্তিতে প্রসাধনী কিনে থাকে। কিন্তু প্রসাধনী কেনার সময় সর্বপ্রথম দেখে নিন এতে কি কি উপকরণ আছে। উপকরণগুলো আপনার ত্বকের জন্যে উপযুক্ত কিনা দেখে নিন। দাম বেশি হলেই তা আপনার ত্বকের জন্যে আদর্শ পণ্য হয়ে উঠবে না।

সামান্য ব্যবহারেই সুফল মিলে

বিজ্ঞাপনের দিকে তাকিয়ে দেখুন। সামান্য ক্রিম, ময়েশ্চারাইজার বা লোশন লাগালেই হয়ে যায়। বিজ্ঞাপনে অবশ্য ত্বকের ধরনভেদে ব্যবহারবিধি বলা হয় না। তাই আপনার ত্বকের ধরণ অনুযায়ী যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই ব্যবহার করুন।

অ্যাকনে দূর করতে রুপচর্চা

অনেকে ভাবেন রূপচর্চা ঠিকঠাক করতে অ্যাকনের সমস্যা দূর হয়। একদমই ভুল ভাবনা। অ্যাকনে অনেক সময় মানসিক চাপ, উল্টোপাল্টা খাবার গ্রহণ, হরমোনের সমস্যা বা পেটের পীড়া থেকেও হতে পারে। তাই উল্টোপাল্টা প্রসাধনী দিয়ে ত্বকের আর ক্ষতি করবেন না।