খাবার দ্রুত হজম করার গোপন ট্রিক্স শিখে নিন

কথায় বলে বাঙালি চিরকালের পেটরোগা। গ্যাস, অম্বল, বদহজম তার নিত্যসঙ্গী। কিন্তু এককালে বাঙালি অনুষ্ঠানবাড়িতে একসঙ্গে খান ৫০ লুচি, ১০০ টা রসগোল্লা, ১ কেজি পাঁঠার মাংস এসব সাবাড় করে এসেছে। কিন্তু সে সব এখন অতীত। এখন আর সেই পেটও যেমন নেই, তেমনই খাঁটি খাবারও নেই। কাজের চাপে বেশিরভাগেরই ভরসা ফাস্টফুড। আবার কেউ কেউ কড়া ডায়েটের মধ্যে থাকেন। কিন্তু হজমের সমস্যা সেই একই রকম থেকে গিয়েছে।

বরং আরও বেশি বিক্রি বেড়েছে অ্যান্টাসিডের। আর এই সব কিছুর জন্য দায়ী কিন্তু আমাদের লাইফস্টাইল। সব সময় পুষ্টিকর খাবার খেলে আর ডায়েট করলেই যে সমস্ত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে এরকমটা কিন্তু নয়। সঠিক সময়ে সঠিক খাবার খেতে হবে। হজম করার এই প্রক্রিয়াটা কিন্তু বেশ বড়। খাবার ঠিক মতো হজম না হলেই পেট খারাপ, গ্যাস, বুকজ্বালা হজমের সমস্যা এসব লেগেই থাকবে। তাই যে ভাবে খাবার খেলে হজমের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন

গরম খাবার খান

যে কোনও খাবারই গরম খান। খাবার ঠান্ডা হয়ে গেলে তার যেমন স্বাদ থাকে না তেমনই কিন্তু হজম করতেও সময় লাগে। এর চেয়ে গরম খাবার খেতে ভালো। গরম খাবার শরীর তাড়াতাড়ি হজম করতে পারে।

খিদে পেলে তবেই খান

বেশির ভাগ মানুষের কিন্তু চোখের খিদেটাই বেশি। আর তাই এবিষয়ে নজর দিন। সময়ে খাবার খান। দুটো মিলের মাঝে হালকা স্ন্যাকস খান। কিন্তু খিদে না পেলে জোর করে খাবেন না। আর প্লেট সব সময় ভর্তি রাখবেন না। তাহলেই কিন্তু বেশি খাওয়া হবে। ছোট প্লেটে খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে কম খাওয়া হবে। যতটা খিদে পাচ্ছে ঠিক ততটাই খাবার খান।

চিবিয়ে খাবার খান

ভালো করে চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন। ফোন ঘাঁটতে ঘাঁটতে বা টিভি দেখে খাওয়ার অভ্যাস খুব খারাপ। এছাড়াও খাবারের মাঝে জল খাবেন না। এতে কিন্তু খাবার হজম করতে সমস্যা হয়। কারণ এনজাইম ঠিক মতো কাজ করে না। আর খাবার যত কম চিবিয়ে খাবেন তত কিন্তু স্ট্রেস বাড়বে।

যে খাবারের সঙ্গে যেটা খাওয়া উচিত তাই খান

দুধ ডিম যেমন একসঙ্গে খাওয়া যায় না তেমনই জুস আর মিল্কও একসঙ্গে খাওয়া উচিত নয়। কারণ এতে মোটেই ঠিক করে হজম হয় না। তাই এমন কিছু খাবার খান যা হজম করতে সুবিধে হয়। ব্রেকফাস্টে টোস্ট, ডিম, ফলের জুস খেতে পারেন। দুধ কর্নফ্লেক্স খেতে পারেন। ভাত, ডাল, তরকারি খান। কিন্তু ভাতের সঙ্গে চানাচুর এমন আজব খাবার না খাওয়াই ভালো।

জল খান বেশি করে

সব সময় বেশি করে জল খান। জল কম খেলেই মাথা ধরা, বদহজম, কিডনি স্টোনের মতো সমস্যা হতে পারে। অন্তত ৪ লিটার জল প্রতিদিন খেতেই হবে। সেই সঙ্গে হার্বাল টি, জুস এই সবও খান।