৬ হাজার মেয়ের বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়া প্রভাস বন্ধ করে দিয়েছিলেন অনুষ্কার বিয়েও, দেখুন বিস্তারিত

দক্ষিণের সুপারস্টার প্রভাস ৪২-এ পা দিলেন। ‘বাহুবলী’ ছবিতে অভিনয় করেই কেরিয়ারের মোড় ঘুরে গেছে অভিনেতার।

তারপর থেকেই প্রভাসকে ‘বাহুবলী’ বলেই একনামে সকলে চেনেন।

‘বাহুবলী’ ছবির জন্য অনেক পরিশ্রম করেছেন প্রভাস। এমনকী তিনি একা নন, অভিনেত্রী অনুষ্কা যেন শুটিংয়ে পুরো মনযোগ দেন তেমনটাই চেয়েছিলেন প্রভাস।

প্রতিবেদন সূত্রে জানা গিয়েছিল, ২০১৫ সালে অনুষ্কার বিয়ে ঠিক হয়েছিল। কিন্তু প্রভাসের নির্দেশেই নাকি এই বিয়ে বন্ধ করতে হয়। কারণ অভিনেতা চাইতেন অনুষ্কা শুধু শুটিংয়ে মনোনিবেশ করুক।

এমনকী ‘শাহো’ ছবির জন্যও প্রভাসের পছন্দ ছিল অনুষ্কাকে। কিন্তু অতিরিক্ত ওজনের জন্য নির্মাতা অনুষ্কার পরিবর্তে শ্রদ্ধা কাপুরকে কাস্ট করেন।

অভিনেতা প্রভাসের সঙ্গে অনুষ্কা শেট্টির সম্পর্ক নিয়ে জলঘোলা কম হয় নি। কিন্তু তারা বারবারই প্রমাণ করেছে তারা ভাল বন্ধু ছাড়া আর কিছুই নয়।

‘বাহুবলী’ ছবির শুটিংয়ের সময় প্রায় ৬০০০ মেয়ের বিয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন প্রভাস। যদি সমস্ত প্রস্তাবই ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বাহুবলী অভিনেতা। এমনকী নিজের বিয়ে ছাড়াও অনুষ্কার বিয়েও নাকি বন্ধ করে দিয়েছিলেন বাহুবলি অভিনেতা।

দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে ইতিমধ্যেই পরিচিতি রয়েছে অনুষ্কার। একের পর এক অভিনেতার সঙ্গে ইতিমধ্যেই নাম জড়িয়েছে অভিনেত্রীর। সেই তালিকায় রয়েছেন প্রভাসও।

সিনেমার এই জুটিকে বাস্তবেও অনেকে দেখতে চান। তবে অনুষ্কা জানিয়েছেন, ‘প্রভাসের সঙ্গে আমার নাম বারবার জড়িয়ে পড়ে, কারণ আমরা এখনও সিঙ্গল। এছাড়াও ছোটবেলার বন্ধুদের মতোই প্রভাসও আমার খুবই ভাল বন্ধু’।

প্রভাসকে নিয়ে তার সম্পর্ক ও বন্ধুত্বের গভীরতা ব্যাখা করতে গিয়ে অভিনেত্রী আরও জানিয়েছেন, প্রভাসের সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব দীর্ঘদিনের । ১৫ বছর ধরে ও খুবই আমার কাছের বন্ধু। এখন ওর আমার বন্ধুত্বটা যে জায়গায় পৌঁছেছে তাতে আমি ওকে যে কোনও সময়েই যখন-তখন ফোন করতে পারি। এমনকী রাতের বেলাতেও ফোন করতে কোনও সমস্যা নেই আমাদের।’

একাধিক ছবিতে প্রভাসের সঙ্গে দেখা গিয়েছে অনুষ্কাকে। এবং মাঝেমধ্যেই তাদের সম্পর্ক সরগরম করে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতা। বাহুবলীর সাফল্যের পর একাধিক বিজ্ঞাপনের জনপ্রিয় মুখ প্রভাস।