ঋতুস্রাবের সময় এই ছয়টি কাজ একেবারেই করবেন না

ঋতুস্রাবের সময় যে ছ’টি কাজ একেবারেই করবেন না

ঋতুস্রাবের দিনগুলিতে শারীরিক অস্বস্তি যেন পিছু ছাড়তেই চায় না! কখনও অত্যধিক রক্তপাত, কখনও বেজায় পেটে ব্যথা। তখন আবার পেটে গরম জলের সেঁক দিয়ে আরাম পাওয়া ছাড়া উপায় নেই। শরীরের পাশাপাশি ক্লান্ত-বিধ্বস্ত হয়ে পড়ে মনও। ঘন ঘন মেজাজ হারাতে থাকে। সব মিলিয়ে বেশ অস্বস্তিকর পরিস্থিতি! কিন্তু ভেবে দেখেছেন আপনার করা বেশ কিছু কাজ এই অস্বস্তিকে আরও বাড়িয়ে তুলছে না তো?

ঋতুস্রাবের সময় কোন কোন কাজ করবেন না?

১) মুখ চালাতে চিপস, নোনতা খাবার খেতে ইচ্ছে করছে? ঋতুস্রাবের সময় এই ধরনের খাবার খাবেন না। এমনিতেই ঋতুস্রাবের সময় শরীর বেশ ভারী ভারী লাগে। তার উপর এই সব খেলে শরীরে জল জমতে পারে।

২) এমনি সময় যত খুশি রাত জাগুন, কিন্তু ঋতুস্রাবের দিনগুলিতে নৈব নৈব চ। একটু আগেই শুয়ে পড়ুন।এতে শরীরের ধকল আর ঋতুস্রাবজনিত অস্বস্তি দুটোই কমবে।

৩) ঋতুস্রাব হয়েছে বলে শরীরচর্চা বন্ধ রেখেছেন? এতে কিন্তু আরও শরীর খারাপ হতে পারে। বরং এই সময় শরীরচর্চা করলে দূরে থাকবে পেটে ব্যথা।

৪) ঋতুস্রাবের দিনগুলিতে ভুলেও দীর্ঘ ক্ষণ খালি পেটে থাকবেন না। যেহেতু এই সময় শরীর থেকে বেশ খানিকটা রক্ত বেরিয়ে যায়, তাই এই সময় পুষ্টিকর খাবার খাওয়া উচিত। তাই কম খাওয়া বা না-খাওয়ার ভুল একেবারেই করবেন না।

৫) পার্লারে গিয়ে খানিকটা সময় কাটাবেন ভাবছেন? তাতে অসুবিধে নেই। কিন্তু ভুলেও ওয়্যাক্স করাবেন না। এই সময় আমাদের ত্বক অনেক বেশি সংবেদনশীল থাকে। তাই ওয়্যাক্স করালে অনেক বেশি ব্যথা পেতে পারেন।

৬) ঋতুস্রাবের সময় খুব বেশি দই, দুধ বা দুগ্ধজাত খাবার না খাওয়াই ভাল। এর ফলে গ্যাস-অম্বলের সমস্যা বাড়ে। এমনকি কোষ্ঠকাঠিন্যও দেখা দিতে পারে।