মজাদার চাল কুমড়া ভাজি ও চাল কুমড়ার মোরব্বা তৈরি করার সহজ রেসিপি

ঘরে বসেই মজাদার চাল কুমড়া ভাজি ও চাল কুমড়ার মোরব্বা তৈরি করার সহজ রেসিপি শিখে নিন।

চাল কুমড়া ভাজি

উপকরণঃ

– চাল কুমড়া ছোট ১ টি,

– পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ,

– রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ,

– লবণ স্বাদমতো,

– জিরা ১ চিমটি,

– হলুদ ১ চিমটি,

– লাল মরিচ ২ টি,

– তেল ২ টেবিল চামচ,

– তেজপাতা ২টি।

প্রণালীঃ

চাল কুমড়া ভাজি স্টাইলে কেটে নিন কিংবা ভাজি কাটার কুড়ানি দিয়ে কেটে ধুয়ে লবণ ও হলুদ মাখিয়ে নিন। কড়াইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজ, রসুন, তেজপাতা, জিরা, লাল মরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিয়ে কুমিড়া দিয়ে ভাজতে থাকুন।পানি শুকিয়ে এলে ভাজা ভাজা করে নামিয়ে নিন।

চাল কুমড়ার মোরব্বা

উপকরণ:

– চাল কুমড়ার ২ কেজি,

– চিনি ৭৫০ গ্রাম,

– অল্প পরিমাণ দারুচিনি ও এলাচ,

– কয়েকটা তেজপাতা,

– সামান্য ঘি।

প্রস্তুত প্রণালী:

ভালোভাবে পাকা চাল কুমড়ার খোসা এবং বীজ ফেলে ২ ইঞ্চি পুরু করে লম্বা ফালি করতে হবে। এবার কাটা চামচ দিয়ে উভয় দিকে ভালো করে কেচে নিন। পুরো কুমড়াকে চেয়ে নেয়া হলে ১ বা ২ ইঞ্চি লম্বা করে ছোট ছোট আকার দিন। এবার একটা পাত্রে পানি দিয়ে কুমড়া গুলো হাল্কা ভাপিয়ে নিন।তারপর ঠাণ্ডা হলে কুমড়া যতটা পারা যায় চিপে পানি ফেলে দিন। এবার আলাদা একটা কড়াইতে চিনি ঢেলে হালকা পানি আর মসলায় মৃদু আঁচে নাড়তে থাকুন। চিনি গলে পানি হয়ে গেলে চেপে রাখা কুমড়া টুকরা ছেড়ে দিন।

এবার একই আচে ধৈর্য ধরে নাড়তে থাকুন। পানি শুকিয়ে কুমড়ার গায়ে আঠা হয়ে লেগে আসবে। প্রায় শুকিয়ে এলে নামিয়ে বড় ট্রেতে ঘি মাখিয়ে মোরব্বা গুলো আলাদা আলাদা করে পাশাপাশি রেখে ঠাণ্ডা হতে দিন। প্রতিটি মোরব্বার ঠিক যতটুকু চিনিতে আবৃত হওয়া প্রয়োজন ততটুকুই লেগে থাকবে। বাকি চিনি পড়াইতে থেকে যাবে। এবার মোরব্বা পুরোপুরি ঠান্ডা হলে কাচের বয়ামে অনেক দিন সংরক্ষণ করা যাবে। দীর্ঘদিন রেখে খেতে চাইলে নরমাল ফ্রিজে রেখে খেতে পারেন।