জেনে নিন ওজন কমাতে কোনটি বেশি কার্যকরী, ভাত নাকি রুটি!

ওজন কমাতে অনেকেই ভাতের বদলে রুটি বেছে নেন। আবার কেউ কেউ ভাত বা রুটি কোনোটিই পাতে রাখেন না। তবে পুষ্টিবিদদের মতে, ভাত বা রুটি পরিমিত খেলে ওজন বাড়ে না বরং কমে।

আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষই ছোট থেকেই ভাত বা রুটি খেয়ে বড় হয়। রাতে ও দুপুরে ভাত বা রুটিই হয়ে থাকে সকল বাড়িতে। দুটি খাবারই অধিক কার্বোহাইড্রেটসম্পন্ন। তবে কোনটি খেলে ওজন দ্রুত কমে, এ প্রশ্ন প্রায় সবার মনেই থাকে।

চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক কোন খাবারে কতটুকু পুষ্টিগুণ আছে, আর কোনটি খেলে দ্রুত কমবে ওজন-

রুটিতে বেশ ভালো মাত্রায় ফাইবার ও প্রোটিন রয়েছে। যা পেট ভরা রাখে অনেক্ষণ। এছাড়া রুটিতে সোডিয়াম রয়েছে, যা শরীরের জন্যও খুব উপকারি।

অন্য দিকে, ভাতে ফাইবার থাকে রুটির থেকে কম। তাই সহজে এটি হজম করা সম্ভব। যারা বদহজমের সমস্যায় ভুগছেন, তারা ভাত রাখুন অবশ্যই খাদ্য তালিকায়।

তবে যারা ডায়েট পরিবর্তনের মাধ্যমে ওজন কমানোর কথা ভাবছেন, তারা চাল ও ডাল একসঙ্গে দিয়ে খিচুড়ি বানিয়ে নিতে পারেন। এতে ডালের মাধ্যমে অধিক প্রোটিন আপনার শরীরে প্রবেশ করবে ও আপনি প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণ পাবেন।

আর যদি মনে করেন রুটি খাবেন তাহলে আটা বা ময়দার বদলে বাজরা, রাগির আটাও ব্যবহার করতে পারেন। এগুলোতে পুষ্টি বেশি। যদি গ্লুটেন ছাড়া আটা ব্যবহার করেন তবে ওজন কমবে বেশি তাড়াতাড়ি।

তবে ভাত বা রুটি যাই খান না কেন, পরিমিত পরিমাণে খাবেন। বরং, সবজি খান বেশি। একবাটি ডাল খান। রোজ মাছ, মাংস ও ডিমের মতো প্রাণিজ প্রোটিন অবশ্যই খাবেন।

প্রতিদিন কয়টি রুটি ও কতটুকু ভাত খাবেন?

ভাতের তুলনায় রুটি বেশিক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। কারণ গমের তুলনায় ভাতে খাদ্যগুণ যেমন- ফাইবার, প্রোটিন ও চর্বি কম থাকে। অন্যদিকে এক বাটি (বড়) ভাতে থাকে ৪৪০ ক্যালোরি থাকে।

এক বেলায় যদি আপনি এতো ক্যালোরি গ্রহণ করেন তাহলে ওজন ঝরানো কষ্টকর হবে। ওজন কমাতে আপনি রাতে আধা বাটি ভাত বা ২টি গমের রুটি খেতে পারেন।