নুসরত-পুত্র ঈশান ছাড়াও যশের রয়েছে ৯ বছরের একটি ছেলে, প্রথম সন্তানকে নিয়ে যা বললেন তিনি…

অভিনেত্রী জানান যশ তার সন্তানের খুব যত্ন নিচ্ছেন, ছেলেকে নিয়ে খুবই যত্নবান তিনি। আর হবেন নাই বা কেন? যশ ইতিমধ্যে একটি ৯ বছরের পুত্র সন্তানের বাবা। যদিও সেই ছেলেকে ক্যামেরার লেন্সে কখনোই আনেননি। সম্প্রতি এক সংবাদ মধ্যম যশের কাছে প্রশ্ন রাখে, ‘এখন যশের ব্যস্ত সময়ের অনেকখানি নিয়ে নিয়েছে ছোট্ট ঈশান, কেমনভাবে কাটছে দিন?’

এর উত্তরে যশ কিন্তু তার বড় ছেলের প্রসঙ্গ টেনে আনেন এই প্রথম। তার কথায়, ‘খানিকটা সময় অবশ্যই ঈশান নিয়ে নিয়েছে, সেটা স্ট্রেস বাস্টার…মুড অফ থাকলে, স্ট্রেসের মধ্যে থাকলে সেটা কাটিয়ে উঠতে অবশ্যই সাহায্য করে’। এর সঙ্গে যশ এও জুড়ে দেন, ‘খুব ছোট ও। সবে ১৫ দিন বয়স। এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু পরিবর্তন আসে না, বিশ্বাস করুন। আমার ছেলে আছে, যার ইতিমধ্যেই ৯ বছর বয়স হয়ে গেছে, এতো তাড়াতাড়ি কিচ্ছু চেঞ্জ আসে না। এটা সংবাদমাধ্যমের বাড়াবাড়ি’।

সদ্য, যশ দাশগুপ্তের প্রথম স্ত্রী শ্বেতা সিংহ কালহানস প্রকাশ্যে আসেন। যশ বা নুসরতের সম্পর্ক নিয়ে তার কোনো মাথাব্যথা নেই। তবে যশ ও তার সন্তান যশের কাছেই আছে। এই ব্যাপারে,শ্বেতা স্পষ্ট জানান যে তার প্রাক্তন স্বামী অর্থাৎ যশের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে তিনি একেবারেই চিন্তিত নন। এমনকি তারকা সাংসদ নুসরত জাহানকেও তিনি ব্যক্তিগতভাবে চেনেন না বলে দাবি।

যশের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক কেবল নিজের সন্তানের বাবা হিসাবেই, এর বাইরে যশকে নিয়ে কোনও ভাবনা-চিন্তা নেই তাঁর। দ্বিতীয়ত যশের বাড়িতে যেই মহিলা থাকতেন তিনিও বাড়ি ছাড়া হয়েছেন, কারণটা ব্যাক্তিগত। এখন সংসার শুধু যশ-নুসরত-ঈশানের।

এস ও এস কলকাতা থেকে নাকি যশ নুসরতের প্রেম শুরু, অন্তত এমনটা স্বীকার করেছেন নিখিল জৈন। নুসরত তখন থেকেই পাল্টাতে থাকেন এরপর নভেম্বরে ঘর ছাড়েন নুসরত। জানুয়ারি মাসে সোলো ট্রিপেও যান, যদিও সকলের ধারণা যশ নিজেও যান।

এরপর নুসরত গায়েব। ভোটের প্রচারে তাকে পাওয়া যায়নি। একদিন আচমকা খবর হল নুসরত প্রেগন্যান্ট। আগস্ট মাসেই পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। কিন্তু, বাবার পরিচয় নিয়ে শুরু থেকে প্রশ্নের পর প্রশ্ন ছিল।

অবশেষে আজ পাকাপাকি ভাবে জানা গেল নুসরতের ছেলের বাবা কে। পুরসভার বার্থ সার্টিফিকেট বলছে নুসরতের সন্তানের পিতার নাম দেবাশিস দাশগুপ্ত। এটিই হল যশ দাশগুপ্তের ভালো নাম বা পোশাকি নাম। অবশেষে নুসরত ও যশের দুরন্ত লাভ এক্সপ্রেস থামলো কোনো এক অজানা স্টেশনে, সেখানে নিখিল সত্যিও শুধু মাত্র সহবাস সঙ্গী।