এই ৬টি অজানা কারণে আপনারও হতে পারে মারাত্মক জয়েন্ট পেইন, সতর্ক হোন

ব্যথা বা যন্ত্রণার পেছনে সবসময় যে ইনজুরির হাত থাকে তা কিন্তু নয়। প্রকৃতপক্ষে, ১০০ এরও বেশি অবস্থার ক্ষেত্রে আর্থ্রাইটিস আবির্ভূত হতে পারে। কিভাবে আপনার ডাক্তারকে আপনার জয়েন্ট পেইন বা অস্থিসন্ধির ব্যথার উৎস শণাক্তকরণে সাহায্য করতে পারেন জেনে নিন।

১. গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ডিজিজ

২০ শতাংশ গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ডিজিজ বা জিআই ডিসঅর্ডারের সঙ্গে ক্রোন’স ডিজিজ বা ইরিটেবল বাওয়েল ডিজিজ (আইবিডি) বা ইরিটেবল বাওয়েল সিন্ড্রোম (আইবিএস) থাকলে আর্থ্রাইটিসের উপসর্গ থাকতে পারে। আমি রোগীদের জিজ্ঞেস করি- বাই দ্যা ওয়ে, আপনার কি ডায়রিয়া আছে? জয়েন্ট সমস্যার সঙ্গে যে ডায়রিয়াজনিত কারণে ঘনঘন বাথরুমে যাওয়ার সম্পর্কে থাকতে পারে তা জেনে অধিকাংশ রোগী বিষ্মিত হয়। যদি তাদের ডায়রিয়া থাকে, চিকিৎসকরা তাদেরকে গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ডিজিজ বিশেষজ্ঞের কাছে পাঠান, যিনি কোলনোস্কপি প্রয়োজন হলে পর্যবেক্ষণ করে দেখেন।

২. মিসক্যারেজ বা গর্ভপাত

ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্ব মর্মঘাতী। এ কথা বিশেষ করে তাদের জন্য প্রযোজ্য যারা গর্ভধারণ করেও গর্ভবতী থাকতে পারছেন না। বারবার গর্ভপাত অনির্ণীত লুপাসের উপসর্গ হতে পারে। লুপাস একটি অটোইমিউন রোগ যা আপনার কিডনি, মস্তিষ্ক এবং রক্তনালীর ক্ষতি করতে পারে। ৯০ শতাংশেরও বেশি লুপাস রোগী জয়েন্ট পেইন অথবা মাসল পেইন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হন। অ্যান্টিফসফলিপিড অ্যান্টিবডি গর্ভপাতের জন্য দায়ী হতে পারে। এছাড়া, যাদের লুপাস আছে, তাদের প্রিক্ল্যাম্পসিয়া থাকার সম্ভাবনাও বেশি। প্রিক্ল্যাম্পসিয়া হল এমন এক অবস্থা যাকে উচ্চ রক্তচাপ দ্বারা চিহ্নিত করা যায় এবং এটি মা ও শিশুকে ঝুঁকিপূর্ণ জটিলতার দিকে ঠেলে দিতে পারে।

৩. সোরিয়াসিস নামক চর্মরোগ

কেন আপনি মনে করবেন চর্ম র‍্যাশের সঙ্গে জয়েন্ট পেইনের সম্পর্ক আছে? অধিকাংশ লোক এমনটা মনে করেন না বা এ সম্পর্কে জ্ঞাত নন, কিন্তু একজন রিউম্যাটোলজিস্ট বা বাতরোগ বিশেষজ্ঞ সবসময় সোরিয়াটিক আর্থ্রাইটিস খুঁজে পেতে চর্ম উপসর্গ পর্যবেক্ষণ করেন। সোরিয়াটিক আর্থ্রাইটিস সোরিয়াসিস থাকা লোকদের মধ্যে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত লোকের ক্ষতি করতে পারে। এটি হল প্রদাহমূলক রোগ যা আঁশযুক্ত লালচে দাগ দেখে চিহ্নিত করা যায়। এটি জয়েন্টকে আক্রমণ করে এবং চিকিৎসা করা না হলে স্থায়ী ক্ষতি হতে পারে। প্রাইমারি কেয়ার পিজিশিয়ান বা পিসিপি শারীরিক পরীক্ষা, রক্ত পরীক্ষা অথবা এমআরআই করে এ রোগ নির্ণয় করতে পারেন। আপনার একজন রিউম্যাটোলজিস্টের চিকিৎসা নেওয়ারও প্রয়োজন হতে পারে।

৪. লাইম ডিজিজ

টিক পোকা কামড়ালে লাইম ডিজিজ নামক রোগ ছড়ায়। এ পোকায় কামড়ালে বোরেলিয়া বার্গডোর্ফেরি ব্যাকটেরিয়ার কারণে ইনফেকশন হয়। লাইম ইনফেকশন খুব সমস্যাপূর্ণ হতে পারে। প্রায়ক্ষেত্রে, টিক পোকা যে কামড়িয়েছে এ সম্পর্কে মানুষের কোনো ধারণাই থাকে না এবং সংক্রমিত মানুষদের মধ্যে এক-চতুর্থাংশ পর্যন্ত মানুষের শরীরে সমস্যা নির্দেশকারী বুলস আই র‍্যাশ লক্ষ্য করা যায় না। চিকিৎসা করা না হলে লাইম ডিজিজ জয়েন্টে আর্থ্রাইটিসের বিকাশসাধন করতে পারে, বিশেষ করে হাঁটুতে ব্যথা বা ফুলে যাওয়া। রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে এ রোগের উপস্থিতি ধরা পড়তে পারে। আপনি যদি আপনার চর্মে টিক পোকা দেখেন, তাহলে ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন।

৫. থাইরয়েড সমস্যা

প্রায়ক্ষেত্রে, থাইরয়েড সমস্যার আড়ালে অন্যান্য সমস্যাও হতে পারে, যেমন- স্ট্রেস এবং নিদ্রাস্বল্পতা। এর কারণ হচ্ছে থাইরয়েড (প্রজাপতি আকারের গ্ল্যান্ড বা গ্রন্থি যা গলায় থাকে) শরীরের অনেক কার্যক্রমের দায়িত্বে থাকে। আন্ডারঅ্যাক্টিভ থাইরয়েড গ্ল্যান্ড বা হাইপোথাইরয়েডিজমের (থাইরয়েড গ্রন্থির পর্যাপ্ত হরমোন উৎপাদনে ব্যর্থতা) কারণে ধীর বিপাক, ওজন হ্রাস, কোষ্ঠকাঠিন্য, ক্লান্তি, কোল্ড সেনসিটিভিটি বা ঠান্ডা সংবেদনশীলতা এবং জয়েন্ট পেইন বা অস্থিসন্ধির ব্যথা হতে পারে। এসব উপসর্গ দেখা দিলে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন। সিম্পল ব্লাড টেস্ট বা সাধারণ রক্ত পরীক্ষার মাধ্যমে রোগ নির্ণয় করা যেতে পারে।

৬. বোন ক্যানসার

সকল ক্যানসারের মধ্যে বোন ক্যানসার বা হাড়ের ক্যানসার আর্থ্রাইটিস বা জয়েন্ট পেইনের জন্য এক শতাংশ দায়ী হতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিবছর ২,৩০০ জনের মধ্যে বোন ক্যানসার নির্ণীত হয়। বোন ক্যানসার যে অবশ্যই জয়েন্ট পেইনের কারণ হবে তা কিন্তু নয়। তবে এটি পায়ের অস্বস্তির (যা দীর্ঘস্থায়ী এবং আসে আর যায় প্রকৃতির হতে পারে) কারণ হতে পারে এবং আক্রান্ত হাড়ের চারদিক ফুলে যেতে পারে। আপনার ডাক্তার অধিকতর পর্যবেক্ষণর জন্য ইমেজিং টেস্টের নির্দেশ দিতে পারেন।

কখন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হবেন

জয়েন্ট পেইন আপনাকে বিরক্ত করলে কিংবা আপনার কোয়ালিটি অব লাইফকে বিপর্যস্ত করলে ডা. স্মিথ প্রাইমারি কেয়ার ফিজিশিয়ানকে দেখাতে পরামর্শ দেন যিনি পরীক্ষা করে দেখবেন এবং জয়েন্ট পেইন শুধুমাত্র জয়েন্টে সীমাবদ্ধ থাকলে কিংবা সিস্টেমিক ডিজিজের (পুরো শরীর কিংবা শরীরের অনেকাংশকে প্রভাবিত করে এমন রোগ) উপসর্গ মনে হলে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেবেন। তিনি আপনাকে একজন রিউম্যাটোলজিস্টের কাছে যেতে বলতে পারেন যিনি জয়েন্ট পেইনের উৎস অনুসন্ধানে অতিরিক্ত পরীক্ষা করতে পারেন। ১০০ প্রকারের ওপর আর্থ্রাইটিস রয়েছে এবং তা আপনার শরীরের প্রতিটি অঙ্গকে প্রভাবিত করতে পারে।

অ্যাপয়েন্টমেন্টের জন্য প্রস্তুতি

জয়েন্ট পেইনের অনেক কারণ এটির সঙ্গে অসম্পর্কিত মনে হওয়ার কারণে এটি নির্ণয় করা কঠিন হতে পারে। শরীরে কি হচ্ছে তাতে মনোযোগ দিন, এমনকি তা সামান্য হলেও। যেকোনো অস্বাভাবিক শারীরিক ঘটনার লিস্ট করুন, এমনকি তা জয়েন্ট পেইনের সঙ্গে সম্পর্কিত মনে হোক বা না হোক। এটি আপনাকে রোগ নির্ণয় ও ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্টে সহায়তা করবে। উপসর্গ সম্পূর্ণ অসম্পর্কিত হতে পারে, কিন্তু ডাক্তাররা সমস্যার কারণ নির্ধারণের জন্য সব প্রয়োজনীয় তথ্য একত্রে পেতে চান। এটি এমন এক সমস্যা যেখানে বেশি তথ্য সবসময় উত্তম বলে বিবেচিত।