আপনার শিশু কি সারাক্ষণ মোবাইল বা টিভির স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকে? জেনে নিন এর কুপ্রভাবগুলি

আপনার বাচ্চা সারাক্ষণ মোবাইল বা টিভির স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকে? জানুন এর ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে! আজকাল এমন হয়েছে যে, বাচ্চার হাতে মোবাইল না দিলে বা টিভি দেখতে না দিলে বাচ্চারা খেতে বা ঘুমাতে চায় না। বাবা-মায়েরাও বাচ্চাকে শান্ত করার জন্য দিব্বি তাদের আবদার মেনে নেন। কিন্তু, অতিরিক্ত টিভি দেখা, ফোন নিয়ে বসে থাকার কুপ্রভাবগুলি জানেন কী?

১. মোবাইলে গেইম নিয়ে ব্যস্ত থাকে বা টিভিতে কার্টুন দেখে বাচ্চারা তাই খেলনা নিয়ে খেলা, দৌড়-ঝাঁপ করা বা বন্ধুদের সাথে খেলা ইত্যাদি শারীরিক পরিশ্রম কমে যায় বলে বাচ্চা মোটা হয়ে যায়। বাড়ন্ত বয়সে প্রয়োজনের তুলনায় অধিক মোটা হয়ে যাওয়া প্রভাব ফেলে অন্যান্য শারীরবৃত্তীয় কাজেও।

২. একটানা স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকার ফলে চোখের ওপর চাপ পড়ে। ক্ষতিগ্রস্ত হয় চোখের স্বাস্থ্য।

৩. বাচ্চা কারও সাথে মিশতে শেখে না, অসামাজিক হয়ে যায়। অপরিচিত কারো সাথে কথা বলতে শেখে না।

৪. নতুন কিছু শেখার আগ্রহ কমে যায়। পড়াশোনায় মনোযোগ দিতে পারেনা।

৫. বাস্তববাদী হতে পারে না। বাস্তবের সাথে টিভিতে দেখা অনুষ্ঠান মেলাতে গিয়ে কল্পনার রাজ্যে বিচরণ করে।

৬. কোনও ভয়ের প্রোগ্রাম যা ছোট মনে ভয় সৃষ্টি করে বা নেগেটিভিটি তৈরি করে; সেরকম কিছু দেখলে মানসিক ভারসাম্যে সমস্যা হয়।

৭. অনেক অনুষ্ঠান বাচ্চাদের মনে নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। বিচার করে গ্রহণ করার ক্ষমতা থাকে না ছোট্ট বাচ্চাগুলোর মধ্যে। তাই অনেকক্ষেত্রেই টিভির অনুষ্ঠানের বা মোবাইল ভিডিওর অনুসরণ করতে গিয়ে বাচ্চা রাগী ও জেদি হয়ে পড়ে।

৮. মস্তিষ্কের নিজে ভাবনাচিন্তা করার সময়টাও কেড়ে নেয় অতিরিক্ত স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকা। তাই মস্তিষ্কের স্বাভাবিক বিকাশও খুব ধীরে হয়।