জেনে নিন ভুড়ির ধরন অনুযায়ী কমানোর উপায়

বর্তমানে অতিরিক্ত মেদ-ভুড়ির সমস্যা কমবেশি সবাই ভুগছেন। তবে সবার ভুড়িই কিন্তু এক ধরনের হয়ে থাকেন। কারও উপরের পেট বেশি বড় আবার কারও নিচের পেট। তবে কেন এমনটি হয়? বেলি ফ্যাট দেখেও জানা যায় আপনার শারীরিক সমস্যার খবর!

অবাক করা বিষয় হলেও সত্যিই তাই। শারীরিক বিভিন্ন সমস্যার ইঙ্গিত দিতে পারে ভুড়ি। তাই পেট কমানোর আগে জেনে নেওয়া উচিত আপনার ভুড়ির ধরন কেমন। সে অনুযায়ীই আপনাকে ভুড়ি কমানোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

স্ট্রেস বেলি

যারা অতিরিক্ত কাজের চাপ, দুশ্চিন্তা বা স্ট্রেসে ভুগেন; তাদেরও পেটে মেদ বাড়তে থাকে। যাকে বলা হয় স্ট্রেস বেলি। এটি কর্টিসলের মাত্রা বৃদ্ধির কারণে ঘটে। যখন কোনো ব্যক্তি প্রচুর মানসিক চাপের মধ্যে থাকেন; তখন কর্টিসলের উৎপাদন বেড়ে যায়।

ফলস্বরূপ এটি পেটের বিভিন্ন অঞ্চলে জমে থাকা চর্বির পরিমাণ আরও বাড়িয়ে তোলে। ওজন বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য অনেকটাই দায়ী কর্টিসল হরমোন।

কীভাবে এর থেকে পরিত্রাণ পাবেন?

স্ট্রেস বেলি কমাতে আপনি মেডিটেশন এবং ইয়োগা শুরু করুন। যা আপনাকে মানসিক চাপ থেকে মুক্ত রাখবে। উদ্বেগের মাত্রা কমতে শুরু করবে। পাশাপাশি পর্যাপ্ত ঘুমালেই আপনি এ ধরনের পেটের মেদ কমাতে পারবেন।

হরমোনাল বেলি

নাম শুনেই নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন, এ ধরনের ভুড়ি হওয়ার কারণ হলো হরমোনের অসামঞ্জস্যতা। হাইপারথাইরয়েডিজম থেকে শুরু করে পিসিওএস’সহ অনেক হরমোনীয় পরিবর্তন এবং অনিয়মের ফলে ওজন বাড়তে পারে। এর ফলে পেটে অতিরিক্ত মেদ জমতে শুরু করে।

কীভাবে মুক্তি পাবেন?

হরমোনাল বেলি কমানোর একমাত্র উপায় হলো হরমোনের ভারসাম্যহীনতা ঠিক রাখা। এজন্য অস্বাস্থ্যকর খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে হবে। খাদ্য তালিকায় অ্যাভোকাডো, বাদাম এবং সামুদ্রিক মাছ অবশ্যই রাখতে হবে।

পাশাপাশি নিয়মিত শরীরচর্চা বজায় রাখতে হবে। একটি স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখুন। জীবনযাত্রার পরিবর্তনেই হরমোনাল বেলি দূর করা করা সম্ভব।

তলপেটে বেড়ে যাওয়া

অনেকেরই শরীরের উপরের অংশ স্বাভাবিক থাকে; তবে তলপেটসহ নিচের অংশ বাড়তে শুরু করে। এ ধরনের পেটের কারণ হলো হজমগত সমস্যা।

যারা হজমজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগে থাকেন; তাদের নিচের পেট আস্তে আস্তে বাড়তে শুরু করে। পেটে গ্যাস জমে থাকার কারণেও অনেকের পেট উঁচু দেখায়।

এটি থেকে কীভাবে মুক্তি পাবেন?

এ ধরনের পেট যাদের; তাদের উচিত ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া। এর ফলে হজমশক্তি বাড়বে। পাশাপাশি পর্যাপ্ত পানি পান করুন।

ভাজাপোড়া ও তৈলাক্ত খাবার পরিহার করুন। ডায়েটে সবুজ শাকসবজি রাখুন। বিভিন্ন ধরনের পেটের ব্যায়ামগুলো করুন। তাহলে দ্রুত পেটের মেদ কমতে শুরু করবে।

ভুড়ির ধরন অনুযায়ী কমানোর উপায় জানুন

ব্লোটেড বেলি

যারা সবসময় অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে থাকেন; তাদের এ ধরনের ভুড়ি হয়ে থাকে। গ্যাস্ট্রিক ও বদহজমের কারণে প্রায়শই পেটে ফোলাভাব থাকে। এ ধরনের পেটকে ব্লোটেড বেলি বলা হয়ে থাকে।

এটি থেকে কীভাবে মুক্তি পাবেন?

এ ধরনের পেট কমানোর সর্বোত্তম উপায় হলো নিয়মিত অনুশীলন। পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর ডায়েটের বিকল্প নেই। কোমল পানীয়সহ ভাজা-পোড়া ও তৈলাক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন।

মমি বেলি

সন্তান জন্মের পর অনেক মায়েদের পেটেই মেদ জমতে শুরু করে। এ ধরনের ভুড়িকে বলা হয় মমি বেলি। এ ধরনের পেট অনেকটা গর্ভবতীর মতোই দেখায়।

আসলে নারীর গর্ভাবস্থার পরে আগের শরীর ফিরে পেতে অনেকটা সময় লাগে। তাই এটি নিয়ে দুশ্চিন্তা করার প্রয়োজন নেই।

এটি থেকে কীভাবে মুক্তি পাবেন?

এ ধরনের পেট কমাতে কখনোই অতিরিক্ত শরীরচর্চা করবেন না। বরং পর্যাপ্ত বিশ্রাম নিন এবং নিজেকে সুস্থ রাখুন।

পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর খাবার, বাদাম, জলপাই তেল এবং অ্যাভোকাডো খান। পেটের চামড়া যদি ঝুলে যায় সেক্ষেত্রে কেজেল এক্সারসাইজ করতে পারেন।

৫০০০+ মজদার রেসিপির জন্য Google Play store থেকে Install করুন “Bangla Recipes” মোবাইল app…. 🙂
.
মোবাইল app Download Link >>> Bangla Recieps App

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *