ছেলের সঙ্গে কাটানো বিশেষ মুহূর্তের ছবি, সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন শ্বেতা তিওয়ারি(ফটোগ্যালারী)

ছেলে Reyanshর সঙ্গে সুন্দর ছবি পোস্ট করলেন Shweta Tiwari, Television তারকা Shweta Tiwari বারবার নিজের ব্যতিক্রমী পছন্দ নিয়ে কয়েক মিলিয়ন মানুষের মন কেড়েছে। সম্প্রতি Khatron Ke Khiladi 11 এর প্রতিযোগী ছিলেন তিনি।

১৯৯৮ সালে ভোজপুরী অভিনেতা রাজা চৌধুরীর সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়েছিলেন Shweta Tiwari। সেসময় শ্বেতার বয়স ছিল মাত্র ১৯,যদিও বিয়ের এক বছরের মধ্যেই রাজা ও শ্বেতার বন্ধুত্ব তিক্ততায় ভরে যায়। অভিযোগ ওঠে শ্বেতাকে মারধর করতেন রাজা। রাজার সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পর সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে শ্বেতা জানিয়েছিলেন, ”উফ আমি নরক যন্ত্রণার মধ্যে ছিলাম! আসলে, আমার বিয়ের সাত বছর হয়েছে, তার মধ্যে ৬ বছরই আমি বিবাহ-বিচ্ছেদের জন্য লড়াই করছি। এটা যেন ১৩-১৪ বছরের বনবাস। যেখান থেকে অবশেষে বের হয়ে আসতে পারলাম।”

টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেতার শ্বেতা তিওয়ারির দিতীয় পক্ষের সন্তান Reyansh, সময় পেলে মাঝেমধ্যেই দুই সন্তানকে নিয়ে বেড়াতে চলে যান অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারি। মেয়ে পলক ও ছেলে রেয়াংশকে নিয়ে মহাবালেশ্বর বেড়াতে গিয়েছিলেন শ্বেতা।

সম্প্রতি Khatron Ke Khiladi 11 প্রতিযোগিতা চলাকালিন তাঁর স্বামী নানা রকম কথা বলতে থাকেন, একপ্রকার অভিযোগ করেন যে শ্বেতা তাঁর দিতীয় সন্তান Reyanshর ঠিকমতো দেখভাল করেন না। অন্যদিকে Reyanshর সঙ্গে কাটানো সুন্দর মুহূর্ত শেয়ার করলেন শ্বেতা তিওয়ারি।

টেলিভিশনের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারির সঙ্গে তাঁর মেয়ে পলক তিওয়ারির ছবি দেখলে চমকে উঠবেন।​ মা-মেয়ে যখন এক ফ্রেমে বন্দি হলে তা দেখে নেট জনতার ঘুম উড়ে যায়। শ্বেতা তিওয়ারির পাউডার ব্লু স্যুট পরে ছেলের সঙ্গে ছবি তুলেছেন।

শ্বেতা তিওয়ারি এবং পলক তিওয়ারি দুই মা-মেয়ে কোনও আংশেই সুন্দরে কম যায় না। ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে মেয়ে পলকের সঙ্গে শ্বেতা তিওয়ারির ছবিতে মুগ্ধ নেটিজেনরা।

সময় পেলে মাঝেমধ্যেই দুই সন্তানকে নিয়ে বেড়াতে চলে যান অভিনেত্রী শ্বেতা

দ্বিতীয়বার মা হওয়ার সময় ওজন বেড়েছিল অনেকটাই। তবে, তারপর ১০ কেজি ওজন কমিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন শ্বেতা তিওয়ারি।

৫০০০+ মজদার রেসিপির জন্য Google Play store থেকে Install করুন “Bangla Recipes” মোবাইল app…. 🙂
.
মোবাইল app Download Link >>> Bangla Recieps App

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *