শিখে নিন শীতকালে স্নান না করেও শরীর পরিচ্ছন্ন রাখার সহজ ঘরোয়া উপায়

৫টি এমন পদ্ধতি রয়েছে যার মাধ্যমে স্নান না করেও শরীর পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব।

শীতকাল এলেই ঠান্ডার ভয়ে স্নান করতে ঢুকেও গায়ে জল না ঢেলেই বেরিয়ে আসেন অনেকে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বস্টন ইউনিভার্সিটির একদল গবেষকদের মতে নিয়মিত স্নান না করাই ভাল। একাধিক মার্কিন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিন স্নান করাটা অনেকটাই একটা সামাজিক রীতি বা অভ্যাস। এ ক্ষেত্রে তাঁদের যুক্তি হল, প্রতিদিন স্নানের অভ্যাস আসলে শরীর পরিচ্ছন্ন রাখা।

তাই স্নান না করেও শরীর পরিচ্ছন্ন রাখার আরও অনেক পদ্ধতি রয়েছে। বিশেষ করে ৫টি এমন পদ্ধতি রয়েছে যার মাধ্যমে স্নান না করেও শরীর পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব। আসুন এ বার এই পদ্ধতিগুলি সম্পর্কে সবিস্তারে জেনে নেওয়া যাক।

১) পায়ের যত্ন নিন: শীতকালে নিয়মিত স্নান না করলেও সাবান দিয়ে পা ধুতে ভুলবেন না। কারণ, যে ধরনের জুতোই পরুন না কেন, পায়ে প্রচুর জীবাণু বা ব্যাক্টেরিয়া থেকে যায়। তাই পায়ের তলা, আঙ্গুলের খাঁজগুলি ভাল করে সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এর পাশাপাশি জুতো পরার সময় সম্ভব হলে পায়ে ও জুতার ভেতরে সামান্য পাউডার বা পারফিউম ছিটিয়ে দিন।

২) চুলের যত্ন নিন: অনেকেরই চুল দু-একদিন না ধুলেই আঠালো চিটচিটে হয়ে যায়। ফলে চুলে দুর্গন্ধও হয়। শীতকালে প্রতিদিন চুল না ভেজালেও ড্রাই শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। ড্রাই শ্যাম্পু স্প্রে করার পর ভাল করে মাথা আঁচড়ে নিন। সম্ভব হলে প্রতিদিন অন্তত ৫-৬ বার চুলে ব্রাশ করুন।

৩) ঘুমানোর আগে পারফিউম মাখুন: হয়তো কাজের চাপে বাড়ি ফিরতে দেরি হয়ে গেল। রাতে স্নান না করে যে সকালে স্নান করবেন, তারও উপায় নেই! সে ক্ষেত্রে কী করবেন! এ ক্ষেত্রে ঘুমানোর আগেই গায়ে বডি স্প্রে বা পারফিউম মেখে নিন আর সকালে ঘুম থেকে উঠে আরেকবার। শরীরে কোনও দুর্গন্ধ হবে না।

৪) সঠিক পদ্ধতিতে পারফিউম দিন: পারফিউমের গন্ধ দীর্ঘস্থায়ী করতে সেটা সঠিক উপায়ে মাখুন। পারফিউম দিন শরীরের ‘পালস পয়েন্ট’-এ। যেমন, ঘাড়ে, কবজি বা কনুইয়ের ভেতরের দিকে। পারফিউম স্প্রে করে ঘষবেন না। চেষ্টা করুন শরীরের একটু দূর থকে স্প্রে করে আলতো করে আঙুলের ডগা দিয়ে শরীরে মেখে নিতে।

৫) ঢিলেঢালা পোশাক পরুন: শীতকালে কখনওই আঁটসাঁট পোশাক পরা উচিত নয়। আঁটসাঁট পোশাক পরলে শরীরে ঘাম বা দুর্গন্ধ হয় বেশি। তাই শীতকালে ঢিলেঢালা পোশাক।